১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত নয় এমন তহবিলে ব্যাংকের সর্বোচ্চ বিনিয়োগ ২শ কোটি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বিএসইসি কর্তৃক নিবন্ধিত বিশেষ উদ্দেশ্যে গঠিত তবে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত নয় এধরণের কোন তহবিল বা তহবিলসমূহে (বিশেষ উদ্যেশ্যে গঠিত তহবিল, বিকল্প বিনিয়োগ ফান্ড বা সমজাতীয় কোন তহবিল) কোন তফসিলি ব্যাংকের সর্বোচ্চ বিনিয়োগ সীমা হবে ২শ কোটি টাকা।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংক অফ সাইট সুপারভিশন বিভাগ থেকে জারীকৃত এক সার্কুলারে এ নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। নির্দেশনাটি সংল সফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ পুজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা (বিএসইসি) কর্তৃক বিশেষ উদ্দেশ্যে গঠিত এবং পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত নয় এধরণের যে কোন তহবিল গঠনে কোন তফসিলি ব্যাংক বিনিয়োগ করলে তার উর্ধ্বসীমা হবে ২শ কোটির টাকা। এ ধরণের তহবিলে বিনিয়োগে সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে পরিচালনা পর্ষদের মতামত নিয়ে তা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অপসাইট সুপারভিশন বিভাগে আবেদন পাঠাতে হবে। আবেদনের সঙ্গে তহবিল বিষয়ের সব তথ্য এবং একই সঙ্গে ব্যাংকটির মূলধন, তারল্য, সম্পদ ও দায়ের গুণগতমান ও পরিমাণের সর্বশেষ তথ্য প্রদান করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকে আবেদন দাখিল করার পূর্বে অবশ্যই ব্যাংটিক যে তহবিল থেকে বিনিয়োগে করবে, সংম্লিষ্ট বিনিয়োগকারী ব্যাংকের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কোন পক্ষ বা বিনিয়োগকারী ব্যাংকের কোন শেয়ার/ডিবেঞ্চার/বন্ড বা অন্য কোন ইন্সট্রুমেন্টে অথবা অপর কোন ব্যাংক বা আর্থিখ প্রতিষ্ঠানের উপর তহবিলের কোন ধরণের আর্থিখ দাবি সৃষ্টি হয় এমন কোন বিনিয়োগে উক্ত তহবিল ব্যবহার করা যাবে না। সংশ্লিস্ট ব্যাংক কর্তৃক এ তহবিলে বিনিয়োগ করার পূর্বে এ ধরনের কোন আর্থিখ দাবি ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়নি এধরনের প্রত্যয়নসহ বিনিয়োগকারী ব্যাংক ও সংশ্লিষ্ট তহবিলের ট্রাস্টির মধ্যে একটি চুক্তি করে তা দাখিল করতে হবে। এ ধরণের কোন তহবিল বা তহবিলসমূহে কোন তফসিলি ব্যাংকের বিনিয়োগ ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ধারা ২৬ক এর উপধারা (১) এ বর্ণিত পুঁজিবাজার বিনিয়োগ উপাদানসমূহের আওতা বাহির্ভূত থাকবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।