২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চার বছর নিষিদ্ধ ফুটবলার আদেমি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ড্রাগ টেস্টে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় চার বছরের জন্য সব ধরনের ফুটবলীয় কার্যক্রম থেকে ক্রোয়েশিয়ান ক্লাব ডায়নামো জাগরেবের মিডফিল্ডার আরিয়ান আদেমিকে নিষিদ্ধ করেছে ইউরোপীয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফা। ক্লাব সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে সেপ্টেম্বরে আর্সেনালের বিপক্ষে ডায়নামোর ২-১ গোলের জয়ের ম্যাচটিতে ২৪ বছর বয়সী আদেমিকে ড্রাগ টেস্টের পরীক্ষায় বসতে হয়। ঐ টেস্টেই তার শরীরে নিষিদ্ধ ওষুধের সন্ধান পাওয়া গেছে যা পরবর্তীতে উয়েফার তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। সুইজারল্যান্ডে শুনানির পর ইউরোপীয়ান ফুটবল কর্তৃপক্ষ মেসিডোনিয়ার জাতীয় দলের এই মিডফিল্ডারকে চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে। যদিও শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছে আদেমি। ক্লাবের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমার অনুভূতি বলে বোঝাতে পারবো না। সম্প্রতি আমাকে যারা ফোনে বা বিভিন্ন বার্তা পাঠিয়ে সহযোগিতা করেছে তাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। কিন্তু এই বিষয়ে কথা বলাটা সত্যিই কঠিন।’ আদেমিকে সমর্থনের ব্যাপারে ডায়নামোর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ক্লাবের পক্ষ থেকে আমরাও বেশ ব্যথিত। এই ধরনের ঘটনায় আমরা সত্যিই দুঃখিত। আদেমির এই দুঃসময়ে তারজন্য যা করণীয় সেটাই আমরা করার চেষ্টা করবো। উয়েফা ইতোমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ডায়নামোর কোন পয়েন্ট কাটা হবে না। এফ গ্রুপ থেকে চার ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষ দু’টি স্থানে রয়েছে বেয়ার্ন মিউনিখ ও অলিম্পিয়াকোস। আর ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ডায়নামো জাগরেব। সমান সংখ্যক পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে সবার শেষে রয়েছে ইংলিশ জায়ান্ট আর্সেনাল।

জাপানের গর্ব মাও আসাদা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ২০১৩ সালটা দারুণ কাটে আসাদার। সোচিতে অনুষ্ঠিত জিপি ফাইনালে স্বর্ণপদক জয়ের স্বাদ পান তিনি। একই বছরে এনএইচকে ট্রফিও নিজের শোকেসে তুলেন ২৫ বছর বয়সী এই তারকা। কিন্তু অসাধারণ পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে সে বছরই বিরতিতে যাওয়ার ঘোষণা দেন তিনি। যা ভক্ত-অনুরাগীদের কাছে বিস্ময়কর হয়েই আসে। তবে অতীত নিয়ে এখন আর ভাবছেন না তিনি। ফিরতে চান নতুন করে।

বর্তমানে জাপানের সোনালি কন্যা হিসেবে বিবেচিত ফিগার স্কেটার মাও আসাদা। অসাধারণ সব পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে এই বয়সেই নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন তিনি।