২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শুধু ধনীদের নয়, ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদেরকে ঋণ দিতে হবে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান বলেছেন, শুধু ধনীদের নয়। ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদেরকে ঋণ প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নের জন্য সবাইকে সঙ্গে নিয়ে একসঙ্গে এগিয়ে যেতে হবে। বুধবার বাংলা একাডেমির আব্দুল সাহিত্য বিশারদ হলে ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসী ক্যাম্পেইন-বাংলাদেশ স্মল অ্যান্ড মিযিয়াম এন্টার প্রাইজ খাতের উন্নয়ন:সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় ব্যাংকিং মেলা ২০১৫ উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগাম ডিপার্টমেন্ট এই সেমিনারের আয়োজন করে।

গবর্নর বলেন, ক্ষুদ্র ও নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ প্রদানে সবগুলো ব্যাংককে একসঙ্গে একটি করে উপজেলা ধরে ধরে অর্থায়ন ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। তাদের উৎপাদিত পণ্যের বাজার সৃষ্টি করতে হবে। নারী উদ্যোক্তায় বিনিয়োগ মানে ভবিষ্যত প্রজন্মে বিনিয়োগ। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ব্যাংকগুলো ৬হাজার উদ্যোক্তা তৈরি করেছে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডেপুটি গবর্নর সিতাংশু কুমার সুর চৌধুরী বলেন, বড় বড় গ্রাহকের পেছনে ছুটে টাকা না হারিয়ে ছোট ছোট গ্রাহকের দিকে নজুর দিন। ক্ষুদ্র মাঝারী উদ্যোক্তাদের জামানত বিহীন ঋণ বিতরণের পরিমান খুবই নগণ্য। তিনি বলেন, ঋণ বিতরণের জন্য গ্রাহক ব্যাংকে আসবে না। ব্যাংককেই গ্রাহকের দরজায় যেতে হবে। না গেলে যেকোনো সময় অস্তিত্ব সংকটে পড়তে হবে। কারণ ঋণ না পাওয়া ও অতিরিক্ত সুদ নেওয়ার অভিযোগ আছে গ্রাহকের কাছ থেকে। যে হারে এসএমই সম্প্রসারণ করা উচিত তা হচ্ছে না। ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের প্রতিষ্ঠানে কর্মরত শ্রমিকদেরও ন্যায্য মুজুরী দেওয়ার আহবানও জানান সুর চৌধুরী। এসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের ভাইস চেয়ারম্যান ও ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল মান্নান বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্ভনর দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ করতে ব্যাংকিংখাতের জন্য যেভাবে কাজ করছেন। আমরা তার সঙ্গে সে কাজ বাস্তবায়ন করতে চাই। বাংলাদেশ লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান ও প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আসাদ খান আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, ব্যবসা করলে আপনাকে সবধরণের ব্যবসায়ীর কাছে যেতে হবে। শুধু বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠানের কাছে গিয়ে বসে থাকলে চলবে না।

ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের মাঝেও অর্থায়ন করতে হবে। এজন্য বাংলাদশ ব্যাংকের পূণ:অর্থায়ন তহবিল থেকে নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে অর্থায়ন করার আহবানও জানান আসাদ খান। রাজশাহীর নারী উদ্যোক্তা হাসনা বেগম নারী উদ্যোক্তাদের তৈরি পণ্যের বাজার আরও প্রসারিত করার আহবান জানান। এছাড়াও বক্তব্য দেন কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার উদ্যোক্তা হালিমা খাতুন, জামালপুরের দিলুয়ারা বেগম। এসএমই অ্যান্ড স্পেশাল প্রোগ্রাম ডিপার্টমেন্টের নির্বাহী পরিচালক নির্মল চন্দ্র ভক্ত সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত বক্তব্য দেন বিভাগের মহাব্যবস্থাপক স্বপন কুমার রায়। সেমিনারে বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা উদ্যোক্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।