২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ফ্রান্সে উগ্র ডানপন্থীরা সুবিধাজনক অবস্থানে

সন্ত্রাসী হামলার হুমকি বাড়তে থাকায় ফ্রান্সের উগ্র ডানপন্থীরা এখন রাজনীতিতে সুবিধাজনক স্থানে উঠে এসেছে। শরণার্থী প্রবেশে শিথিল নীতি অনুসরণ, সীমান্ত উন্মুক্ত রাখা ও রক্ষণশীল ইসলামের বিরুদ্ধে তারা বছরের পর বছর ধরে উচ্চকণ্ঠ থাকলেও জাতীয় রাজনীতিতে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। কিন্তু প্যারিস হামলাসহ সাম্প্রতিক বেশ কিছু হামলা এবং ইউরোপে সন্ত্রাসী হামলার হুমকির পর এখন তাদের জনসমর্থন বাড়তে শুরু করেছে। খবার ওয়াশিংটন পোস্ট অনলাইনের।

উগ্র ডানপন্থী রাজনীতিক মেরি লা পেন সম্প্রতি ফ্রান্সের উত্তরাঞ্চলীয় শহর আমিয়েন্সে এক সমাবেশে বলেছেন, ‘আমরা অনেক দিন ধরেই তাদের সতর্ক করেছি, কিন্তু তারা আমাদের কথা শোনেনি।’ কিন্তু ১৩ নবেম্বরের প্যারিস হামলা যেন রাজনীতির হিসাবনিকাশ ঘুরিয়ে দিয়েছে। ওই হামলায় ১৩২ জন নিহত ও সাড়ে ৩শ’ লোক আহত হয়। জঙ্গী গ্রুপ আইএস হামলার দায় স্বীকার করেছে। লা পেনের সমাবেশে এখন যথেষ্ট লোক সমাবেশ হচ্ছে। তিনি ও তার মতো কট্টর ডানপন্থীরা এতদিন মূলধারার রাজনীতিকদের কাছে উপহাসের পাত্র ছিলেন। তারা অভিযোগ করতেন ডানপন্থীরা ইউরোপে মানবভীতি বর্ণবাদ ছড়াচ্ছে।

প্যারিস হামলার পর ফ্রান্সের বর্তমান সোশ্যালিস্ট প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ এখন উগ্র ডানপন্থীদের রাজনীতির পরিভাষাগুলো ব্যবহার শুরু করে দিয়েছেন। অন্যদিকে মধ্য ডানপন্থীরা ঝুঁেক পড়েছেন আরও কট্টর অবস্থানে। দেশটিতে ২০১৭ সালে যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল তাতে লা পেনের প্রার্থী হওয়ার চিন্তাকে এক সময় মনে করা আকাশকুসুম পরিকল্পনা। কিন্তু হঠাৎ করেই যেন বদেল গেছে অবস্থা। গবেষণা সংস্থা ফ্রেঞ্চ ইনস্টিটিউট ফর ইন্টারন্যাশনাল এ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক এ্যাফেয়ার্সের বিশ্লেষক জ্যঁ ইভ কামুস মনে করেন, লা পেনের দল ফ্রান্সের অন্তত দুটো বড় অঞ্চলে ভাল ফল করবে। যদি তাই হয়, তবে সেটি হবে এক উল্লেখযোগ্য ঘটনা।