২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত উৎসব শুরু কাল

বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত উৎসব শুরু কাল

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ রাজধানীর বনানীর আর্মি স্টেডিয়ামে গত তিন বছর ধরে বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজন করা হচ্ছে বেঙ্গল উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত উৎসব। এরই ধারাবাহিকতায় আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে পাঁচ দিনের বর্ণাঢ্য এ উৎসব। এবারের আয়োজনেও দেশ-বিদেশের গুণী শিল্পীদের পরিবেশনা উপভোগ করবেন দেশের সঙ্গীতপ্রেমিরা। চতুর্থবারের মতো আয়োজিত বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ এই উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত উৎসব উৎসর্গ করা হচ্ছে বরেণ্য চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরীকে। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে উৎসব চলবে রাত ১টা পর্যন্ত।

এবারের উৎসবে অংশ নেবেন বিশ্ববরেণ্য শতাধিক শিল্পী ও কলাকুশলী। এবারের আয়োজনের অন্যতম আকর্ষণ কিংবদন্তি ওস্তাদ জাকির হোসেন। আসছেন আরেক বিখ্যাত বাঁশিশিল্পী জয়াপ্রদা রামমূর্তী। বাঁশি শাখায় নারী শিল্পীর অংশগ্রহণ কম হলেও এদিক থেকে শিল্পী জয়াপ্রদা রামমূর্তির অংশগ্রহণ ঢাকার দর্শকদের অন্যতম পাওয়া। প্রথমবারের মতো আসছেন খ্যাতিমান কর্ণাটকি কণ্ঠশিল্পী পদ্মবিভূষণ ড. বালমুরালি কৃষ্ণ। তিনি এবারের আসরের প্রবীণতম শিল্পী। তার সঙ্গে বাঁশিতে যুগলবন্দী বাজাবেন গ্র্যামি এ্যাওয়ার্ড নমিনি শিল্পী রনু মজুমদার। উৎসবে প্রথমবারের মতো আরও আসছেন জনপ্রিয় খেয়ালিয়া শুভা মুডগাল ও শ্রুতি সাদোলিকার ও ধ্রুপদিয়া ওয়াসিফউদ্দিন ডাগর। এন রাজমের নেতৃত্বে আসছেন কর্ণাটকি ধারার তিন প্রজন্মের বেহালাশিল্পী।

উৎসবে নতুন সংযোজন সরস্বতী বীণা। বাজিয়ে শোনাবেন জয়ন্তী কুমারেশ। এস্রাজে থাকছেন শুভায়ু সেন মজুমদার। আরও আসছেন আলারমেল ভালি, পণেশ ও কুমারেশ রাজাগোপালন। গতবার মন জয় করে নেয়া মৃদঙ্গশিল্পী কারাইকুরি মানি আসবেন তার দলের সঙ্গে। কুচিপুড়ি নৃত্য পরিবেশন করবেন বিশিষ্ট দম্পতি রাজা ও রাধা রেড্ডি। আসবেন একই পরিবারের দুজন ভিন্ন মেজাজের শিল্পী, যাদের বাংলাদেশের সঙ্গে নাড়ির টান রয়েছেÑ ইরশাদ খান ও সুজাত খান। ময়মনসিংহের গৌরীপুরের প্রবাদপ্রতিম সেতারিয়া ওস্তাদ বিলায়েৎ খাঁ সাহেবের ভ্রাতুষ্পুত্র ইমরাত খান সুরবাহার বাজাবেন। দুই বছর আগে এই উৎসবে গেয়েছিলেন অস্কার নমিনেশনপ্রাপ্ত বম্বে জয়শ্রী। তিনি এবারও আসবেন। প্রতিবারের মতোই থাকবেন প-িত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়া, প-িত শিবকুমার শর্মা, প-িত অজয় চক্রবর্তী, প-িত সুরেশ তালওয়ালকার, প-িত উল্লাস কশলকার, প-িত তেজেন্দ্রনারায়ণ মজুমদার ও ওস্তাদ রাশিদ খানসহ একঝাঁক বরেণ্য শিল্পী। দেশী শিল্পীদের মধ্যে এবার অংশগ্রহণ করবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগ। ড. অসিত রায়ের পরিচালনায় সঙ্গীত বিভাগ আটজনের একটি দলীয় পরিবেশনা উপস্থাপন করবে। বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী ও সংগঠক মিনু বিল্লাহর পরিচালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন বাংলাদেশের ২২ জন নৃত্যশিল্পী। ওয়ার্দা রিহাবের পরিচালনায় মণিপুরি দলীয় নৃত্য পরিবেশন করবেন ৩০ জন নৃত্যশিল্পী। অনিমেষ বিজয় চৌধুরীর পরিচালনায় সিলেটের আটজন শিল্পী পরিবেশন করবেন ধামার। এককভাবে মঞ্চে আসবেন বিশিষ্ট সরোদশিল্পী ইউসুফ খান।

গতবারের মতো অনলাইনে নিবন্ধন করে বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসঙ্গীত উৎসবে বিনামূল্যে প্রবেশের পাস সংগ্রহ করতে হবে। শুধু অনলাইন নিবন্ধন করেই এবারের অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ করা যাবে। এছাড়া উৎসবের তৃতীয় দিন রবিবার থেকে রাত ১টায় গেট বন্ধ হয়ে যাবে। আগের বারের মতো শ্রোতাদের আর্মি স্টেডিয়ামে পৌঁছানোর জন্য ঢাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থান থেকে উৎসব প্রাঙ্গণ অভিমুখী বাস থাকবে।