২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দিনের চিত্র রাতে উধাও!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) তৃতীয় আসরে দিনে দেখা যায় একরকম চিত্র, রাতেই তা উধাও হয়ে যায়। দিনে ভূরিভূরি রান হয়। হাই স্কোরিং ম্যাচ হয়। রাতেই ঠিক তার বিপরীত ঘটে। রান হয় কম। লো স্কোরিং ম্যাচ হয়। দিনে এখন পর্যন্ত প্রতিটি ম্যাচেই ১৭০ রানের বেশি হয়েছে। রাতের ম্যাচে শুধু একটি ম্যাচেই ১৫০ রানের বেশি হয়েছে। বুধবার প্রথম ম্যাচটিতেও একইরকম দৃশ্য দেখা গেছে। আগে ব্যাট করে সাকিব আল হাসানের দল রংপুর রাইডার্স ১৭৬ রান করেছে। দিনে ব্যাটসম্যানরাও ধুন্ধুমার ব্যাটিং করেন। রাতে এসে রান তোলা এতটাই কঠিন হয়, দিনের দৃশ্য তখন অবাস্তব লাগে! বুধবার রংপুর রাইডার্স ও ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যকার দিনের প্রথম ম্যাচ পর্যন্ত তাই দেখা গেছে। টুর্নামেন্টে প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ হচ্ছে। একটি দুপুর ২টায় শুরু হচ্ছে; আরেকটি সন্ধ্যা পৌনে ৭টায়। প্রথম ম্যাচে দলগুলো বড় স্কোরই গড়ছে। টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচেই চিটাগাং ভাইকিংস ১৮৭ রান করে। রংপুর রাইডার্স তা উতরে যায়। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচেই কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ১১০ রান করে। ঢাকা ডায়নামাইটস ১১২ রান করে জিতে। পরের দিনও একই ঘটনা ঘটে। প্রথম ম্যাচে চিটাগাং ভাইকিংস ১৮০ রান করে। সিলেট সুপার স্টারসও পাল্টা জবাব দেয়। কিন্তু ১ রানের জন্য হারে। রাতের ম্যাচে বরিশাল বুলস করে ১৫৫ রান। এই একটি ম্যাচেই শুধু ১৫০ রানের বেশি হয়েছে। সেই রান করতে পারেনি রংপুর রাইডার্স। তৃতীয় দিনে প্রথম দিনে চিটাগাং ভাইকিংস আবারও ১৭৬ রানের বড় স্কোরই গড়ে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স সেই রান অতিক্রম করে ফেলে। দ্বিতীয় ম্যাচে আবার ছন্দপতন ঘটে। বরিশাল বুলস ১০৮ রান করে। সিলেট সুপার স্টারস তা করতে পারেনি। চতুর্থ দিন এসে রংপুর রাইডার্স ১৭৬ রান করে। কিন্তু ঢাকা ডায়নামাইটস তা করতে পারেনি।

শুধু দলীয়ভাবেই নয়, ব্যক্তিগত নৈপুণ্যের দিক দিয়েও দিনের ম্যাচগুলোই এগিয়ে। বিশেষ করে ব্যাটসম্যানদের জন্য। বুধবার দ্বিতীয় ম্যাচের আগ পর্যন্ত যে ৭টি ম্যাচ হয়েছে তাতে দেখা গেছে দ্বিতীয় ম্যাচে এখন পর্যন্ত মাত্র ২টি অর্ধশতক হয়েছে। ব্যাটসম্যানরা রান পেয়েছেন। সেটি টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় দিন বরিশাল বুলস ও রংপুর রাইডার্সের ম্যাচে। বরিশালের মাহমুদুল্লাহ (৫১) ও রংপুরের মোঃ মিঠুন (৫৫) অর্ধশতক করেছেন। এছাড়া দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে আর কোন অর্ধশতক দেখা যায়নি। টুর্নামেন্টে যে ১১টি অর্ধশতক হয়েছে, এর ৯টিই দিনের প্রথম ম্যাচ থেকে এসেছে। বোলারদের দিক থেকে অবশ্য রাতের ম্যাচই সাফল্য এনে দিয়েছে। বুধবার বরিশাল বুলস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ম্যাচের আগ পর্যন্ত কেবল কেভন কুপার ও আল আমিন হোসেন এক ইনিংসে ৫টি করে উইকেট পেয়েছেন। দুইজনই বরিশাল বুলসের ক্রিকেটার। দুইজনই রাতের ম্যাচে এমন নৈপুণ্য দেখান। এর মধ্যে আল আমিন তো হ্যাটট্রিকসহ ৫ উইকেট নেন। দিনে এক চিত্র দেখা যায়, রাতেই তার পরিবর্তন ঘটে।