২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আজ শুরু বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আজ থেকে মাঠে গড়াচ্ছে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ ২০১৪-১৫। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ও কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহি মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ পুলিশ এ্যাথলেটিক্স ক্লাব এই লীগে অংশগ্রহণ করবে। দলের সার্বিক বিষয়ে অবহিতকরণ এবং স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পরিচিতি অনুষ্ঠান বুধবার দুপুরে পুলিশ হেড কোয়ার্টার, ফুলবাড়ীয়া, ঢাকার কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন একেএম শহিদুল হক, মহাপুলিশ পরিদর্শক, বাফুফের সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী, মোখলেসুর রহমান, অতিরিক্ত মহাপুলিশ পরিদর্শক ও টিম লিডার, পুলিশ এসি, শেখ মুহম্মদ মারুফ হাসানসহ কর্মকর্তাবৃন্দ। এছাড়াও স্পন্সর প্রতিষ্ঠান পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান বি এম ইউসুফ আলী এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আজ ‘মিনিস্টার ফ্রিজ বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ ২০১৪-১৫’ এর শুভ উদ্বোধন বিকেল ৪টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার এমপি। গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত থাকবেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়।

আফগানদের হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশের যুবারা

অনুর্ধ-১৯ ক্রিকেট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ স্বাগতিক ভারতের বিরুদ্ধে দুই ম্যাচেই পরাজয় শঙ্কা তৈরি করেছিল ফাইনালে উঠার। সেই শঙ্কা বুধবার কাটিয়েছে বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৯ ক্রিকেট দল। ভারতে আয়োজিত ত্রিদেশীয় অনুর্ধ-১৯ ওয়ানডে টুর্নামেন্টে আফগানিস্তান অনুর্ধ-১৯ দলকে ৮ উইকেটে বিধ্বস্ত করেছে বাংলাদেশের যুবারা। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কমপ্লেক্স মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচে প্রথম ব্যাট করে ২৬.২ ওভারে মাত্র ৯৯ রানেই গুটিয়ে যায় আফগানরা। জবাবে মাত্র ২৪.৩ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১০১ রান তুলে বড় এ জয় তুলে নেয় বাংলাদেশের যুবারা। তারা ফাইনালে স্বাগতিক ভারতের বিরুদ্ধে মুখোমুখি হবে আগামী রবিবার। কারণ টানা তিন ম্যাচই হেরেছে আফগানরা।

টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নামে আফগানিস্তান অনুর্ধ-১৯ দল। তবে তাদের শুরু থেকেই চেপে ধরে বাংলাদেশের বোলাররা। প্রথম থেকে চাপটা বাংলাদেশের পেস বিভাগই দিয়েছে। যদিও উদ্বোধনী জুটি থেকে ৩৪ রান এসেছিল। এরপরই বিপর্যয় শুরু হয় আফগানিস্তানের। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে তারা বাংলাদেশী স্পিনারদের দাপটে। বাকি ৬৫ রান করতেই সব ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফিরে যায় আফগানিস্তানের। আট নম্বরে নেমে একমাত্র তারিকই কিছুটা লড়েছেন। তিনি ৩০ বলে ৪টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৭ রান করেন। ২৩ ওভার ৪ বল বাকি থাকতেই মাত্র ৯৯ রানে শেষ হয় আফগান ইনিংস। তিনটি করে উইকেট নেন সালেহ আহমেদ শাওন ও সাঈদ সরকার। পেসার মেহেদী হাসান রানা নেন দুই উইকেট। জবাব দিতে নেমে শুরুতেই বিপদ নেমে আসে বাংলাদেশ যুবাদের ইনিংসে। দলীয় মাত্র ২৯ রানেই আউট হয়ে যান দুই ওপেনার সাইফ হাসান (৮) ও জয়রাজ শেখ (৭)। তবে এরপর আর বিপদ হতে দেননি নাজমুল হোসেন শান্ত (৬০ বলে ৩৮) ও অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ (৫০ বলে ৩৭)। ৭২ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন দুজন। ২৫ ওভার ৩ বল বাকি থাকতেই ২ উইকেট হারিয়ে ১০১ রান তুলে জয় পায় বাংলাদেশ।