২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কিশোরগঞ্জের অলিগলি ছেয়ে গেছে ব্যানার পোস্টারে

মাজহার মান্না, কিশোরগঞ্জ ॥ ‘ভিআইপি’ জেলা হিসেবে পরিচিত কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলীয় লবিং ও প্রচারে এগিয়ে রয়েছে। অন্যদিকে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় অনেকটা ধীর গতিতে প্রচারণা চালাচ্ছে। স্থানীয় সরকারের গুরুত্বপূর্ণ এ নির্বাচনে এবারই প্রথম দলীয় প্রতীকে হওয়ায় নিজ দলের সমর্থন পেতে প্রার্থীদের মধ্যে যেন এক ধরনের নীরব প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। আর তাই প্রার্থীরা নিজেকে যোগ্য দাবি করে শীর্ষ পর্যায়ে জোরালো গ্রুপিং-লবিং করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসবকে ঘিরে পৌরবাসীর দোয়া কামনাসহ শুভেচ্ছা জানিয়ে ছবি সংবলিত ব্যানার-পোস্টারে পৌর এলাকার অলিগলি ছেয়ে ফেলেছেন। শহরের পাড়া-মহল্লায় এখন নির্বাচনের আলাপচারিতাই প্রাধান্য পাচ্ছে। ভোটারদের সমর্থন পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীরাও চালাচ্ছেন নানা কৌশল। সব প্রার্থীই এবার নতুন ভোটারদের নিজেদের হাতে রাখতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। অন্যদিকে সচেতন মহলের ভাষ্যমতে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের নিজ শহর দেখে যে কেউ হতাশা ব্যক্ত করবেন। কেননা প্রথম শ্রেণীর এ পৌরসভায় বর্তমানে যানজট, জলজট ও নানা অব্যবস্থাপনায় জঞ্জালের শহরে পরিণত হয়েছে। পৌর এলাকার ভাঙাচোরা রাস্তাঘাট ও ময়লা-আবর্জনার বেহাল দশা দেখে নাগরিকদের মধ্যে এক ধরনের হতাশা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আর তাই আগামী নির্বাচনে ভোটের হিসেবে তাদের এই ভাবনা ব্যাপক প্রভাব রাখবে বলে জানা গেছে।

আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছেন বর্তমান মেয়র মাজহারুল ইসলাম ভূঞা কাঞ্চন, সাবেক যুবলীগ নেতা ও বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক মাহমুদ পারভেজ, সাবেক কাউন্সিলর এ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম জুয়েল, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম শরীফ প্রমুখ। তারা আগেভাগেই প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন। এছাড়াও দলীয় মনোনয়ন চাইতে পারেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের চাচাতো ভাই, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডভোকেট সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু, রাষ্ট্রপতির মেজো ছেলে রাসেল আহমেদ তুহিন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমা-ার আসাদ উল্লাহ, পরিবহন নেতা হেলালউদ্দিন মানিক, শাহজাহান লস্কর প্রমুখ। অপরদিকে, বিএনপি এ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বেছে নিয়েছে।

মেয়র পদে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ভিপি ইসরাঈল মিয়া, সাবেক যুবদল নেতা মাসুদুল হাসান, সাবেক মেয়র আবু তাহের মিয়া প্রমুখ।