২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাঘারপাড়ায় পাড়া-মহল্লায় চষে বেড়াচ্ছেন প্রার্থীরা

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ বাঘারপাড়া পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীরা নানামুখী প্রচারণায় সরব হয়ে উঠেছেন। বিশেষ করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা ভোটারদের সমর্থন আদায়ে পাড়া-মহল্লা চষে বেড়ানোর পাশাপাশি দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। তবে এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রধান দুই রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে দেখা দিয়েছে কলহ। এবার পৌর নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ঘরানা থেকে ৬ সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম জোরেশোরে উচ্চারিত হচ্ছে। অন্য দলের প্রার্থীদের নাম এখনও শোনা যায়নি। সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন বর্তমান মেয়র উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল হাই মনা, সাধারণ সম্পাদক সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী, কেন্দ্রীয় প্রজন্মলীগ নেতা কামরুজ্জামান বাচ্চু, সাবেক মেয়র খলিলুর রহমান বিশ্বাস, মুক্তিযোদ্ধা সোলাইমান হোসেন বিশ্বাস ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি আব্দুর রউফ মোল্লা। তফসিল ঘোষণার পর সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলের মনোনয়ন লাভের আশায় এলাকায় গণসংযোগ ও শুভেচ্ছা বিনিময় শুরু করেছেন।

আমতলী পৌরসভা নির্বাচন হচ্ছে না

উচ্চ আদালতের নির্দেশ

নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী বরগুনা, ২৫ নবেম্বর ॥ সীমানা জটিলতা ও ভোটার তালিকা সংশোধনের আপত্তির কারণে উচ্চ আদালতের নির্দেশে আমতলী পৌরসভার নিবার্চন হচ্ছে না। নির্বাচন কমিশনের তফসিল ঘোষণার আমতলীতে নির্বাচনের হাওয়া বিরাজ করলেও নির্বাচন স্থগিতাদেশের খবরে তা থমকে গেছে।

আমতলী নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, আমতলী পৌরসভা দ্বিতীয় শ্রেণী থেকে প্রথম শ্রেণীতে উন্নীত হয়। কিন্তু প্রথম শ্রেণীতে উন্নীত হলেও পৌরসভার সীমানা ও ভোটার তালিকা সংশোধন হয়নি। এ নিয়ে আমতলী সদর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের শামসু মৃধা সীমানা নির্ধারণ ও ভোটার তালিকা সংশোধনের আপত্তি জানিয়ে ৬ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন দায়ের করেন। উচ্চ আদালত বাদীর আপত্তি আমলে নিয়ে সীমানা নির্ধারণ ও ভোটার তালিকা সংশোধন না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন সংক্রান্ত সকল কাজের ওপর ৬ মাসের স্থগিতাদেশ দিয়েছেন।