১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জ্বালাও পোড়াও নেত্রীকে দেশের মানুষ ভোট দেবে না ॥ নাসিম

স্টাফ রিপোর্টার, সিরাজগঞ্জ ॥ জ্বালাও পোড়াও রাজনীতি এ দেশের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন- জ্বালাও পোড়াও রাজনীতির নেত্রী খালেদা জিয়ার দলকে এদেশের মানুষ আর কোনদিন ভোট দেবে না। জামায়াত-শিবিরকে সঙ্গে নিয়ে দেশব্যাপী জ্বালাও পোড়াও রাজনীতি করায় খালেদা জিয়াকে দেশের শান্তিপ্রিয় মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে। তার ভবিষ্যত অন্ধকার। নিজের কর্মীরাই তাকে এখন আর চেনে না। ভাড়া কর্মী দিয়ে রাজনীতি করায় আগামীতে তিনি আর ক্ষমতায় আসতে পারবেন না। বুধবার তাঁর নির্বাচনী এলাকা কাজীপুরে পৃথক দু’টি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

দুপুরে তাঁর নির্বাচনী এলাকা কাজীপুরে প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্বোধন করেন। সন্ধ্যায় চালিতাডাঙ্গা ইউনিয়নের গাড়াবেড় গ্রামে ৪৭১ গ্রাহকের বাড়িতে বিদ্যুত সংযোগের উদ্বোধন করেন। এর আগে উপজেলা সদরে ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের নবনির্মিত কৃষি ভবন ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের উদ্বোধন করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উদ্বোধন শেষে হাসপাতাল প্রাঙ্গণে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য বিভাগের সকল চিকিৎসক ও কর্মচারীদের কড়া ভাষায় সতর্ক করে তিনি বলেছেন- সীমিত সম্পদ দিয়ে দেশের মানুষকে সেবা দিতে হবে। সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন ডাঃ দেবপদ রায়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্বাস্থ্য বিভাগের সমাবেশে মন্ত্রীর সহধর্মিণী শহীদ এম মনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান বেগম লায়লা নাসিম, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমেদুল কবির, স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর নির্বাহী প্রকৌশলী মনিরুজ্জামান, কাজীপুর উপজেলা চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক সরকার বকুল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাফিউল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শওকত হোসেন সাকার ও সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

মানিকগঞ্জে বাসে যমজ সন্তান প্রসব

নিজস্ব সংবাদদাতা, মানিকগঞ্জ, ২৫ নবেম্বর ॥ পাটুরিয়া ফেরিঘাটের কাছে বুধবার সকাল ১০টার দিকে চলন্ত বাসের মধ্যে শাহেদা (৩৫) নামের এক যাত্রী যমজ কন্যাসন্তান প্রসব করলেন। ফটফুটে ওই যমজ সন্তানসহ মা শাহেদা ভাল আছেন বলে জানালেন শাহেদার ভাই এনামুল হাসান। এদিকে নবজাতকদ্বয় ও মাকে সুস্থতার জন্য নেয়া হয়েছে উথলীস্থ শিবালয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। এ নিয়ে শাহেদা চার সন্তানের জননী হলেন।

শাহেদা খাতুন সাতক্ষীরা সদর উপজেলার কুসুডাঙ্গা গ্রামের খাইরুল ইসলাম বাবুর স্ত্রী। সন্তান প্রসবের জন্য গ্রামের বাড়ি যাওয়ার আগেই সন্তান প্রসব করলেন শাহেদা।

শাহেদার ভাই এনামুল হাসান জানান, ঢাকার গাবতলী থেকে সংগ্রাম পরিবহন যোগে সন্তান প্রসবা বোন শাহেদা, তার দুই মেয়ে সুমাইয়া ও শামীমাকে নিয়ে সাতক্ষীরা গ্রামের বাড়ি ফিরছিলেন। পাটুরিয়া ফেরিঘাটে পৌঁছানোর প্রায় তিন কিলোমিটার আগে বোনের প্রসব যন্ত্রণা উঠলে অল্প সময়ের ব্যবধানে চলন্ত গাড়িতেই যমজ শিশু কন্যা ভূমিষ্ঠ হয়। এ সময় স্বজন ও যাত্রীদের অনুরোধে নবজাতক ও প্রসূতিসহ বাস ঘুরিয়ে ওই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়।