২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সবুজের বার্তা নিয়ে এলো চার ভারতীয় পর্বত আরোহী

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাগুরা, ২৫ নবেম্বর ॥ সারাজীবনে অন্তত একটি গাছ লাগান ও পরিচর্যা করুন- সবুজের এই বার্তা নিয়ে ভারতের পশ্চিমবাংলা থেকে বাংলাদেশে বাইসাইকেল ভ্রমণে বেরিয়েছেন ৪ পর্বত আরোহী। বাংলাদেশে আসা এ ৪ জন হচ্ছেন গৌতম ঘোষ, সুশান্ত দাস, লিপিকা বিশ্বাস ও উজ্জল পাল।

২১ নবেম্বর বেনাপোল সীমান্ত পথে কোলকাতা থেকে সাইকেলে চড়ে তারা বাংলাদেশ যাত্রা শুরু করেন। যশোর জেলা পেরিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত তারা মাগুরা অবস্থান করেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাগুরায় পৌঁছে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলামের সঙ্গে তার অফিসে দেখা করেন।

এছাড়া মাগুরায় অবস্থানকালে তারা বিভিন্ন এলাকায় সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে কথা বলে তাদের সবুজের বার্তা পৌঁছে দেন। পরে বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় তারা ফরিদপুর হয়ে কক্সবাজারের উদ্দ্যেশে রওনা হন। সাইকেল নিয়ে বাংলাদেশের পথে পথে তারা ৩০ দিন থাকবেন। পাড়ি দেবেন ১১০০ কিলোমিটার পথ। জানাবেন গাছ লাগানোর প্রয়োজনের কথা।

ভ্রমণ টিমের অন্যতম সদস্য উজ্জ্বল পাল জানান, তারা চারজনই পর্বত আরোহী। গতবছর একই বার্তা নিয়ে তিনি নিজে সাইকেলে চড়ে কয়েকদিনের জন্য এ দেশে এসেছিলেন। সে সময়ে এদশের সবুজ প্রকৃতি, সহজ-সরল জীবন যাপন, অসাম্প্রদায়িক ভ্রাতৃত্ববোধ ও অকৃত্রিম ভালবাসাসহ ভাল কাজের প্রতি মানুষের ইতিবাচক মনোভাবে মুগ্ধ হয়েছেন। পরে কোলকাতায় ফিরে সার্বিক বিষয় নিয়ে অন্যদের সঙ্গে আলোচনা করে ৩ সদস্যকে নিয়ে বিস্তৃত পরিসরে পরিবেশ রক্ষার এ কাজটি করতে আবার বেরিয়েছেন।

কুয়াকাটায় রাস উৎসবে ভক্তের ঢল

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ২৫ নবেম্বর ॥ বুধবার সকালে কুয়াকাটায় পুণ্যস্থানের মধ্য দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী পাঁচ দিনের রাস উৎসব কলাপাড়ায় শুরু হয়েছে। উৎসবকে ঘিরে মঙ্গলবার রাত থেকেই রাসভক্তদের ভিড় লেগে যায়। কুয়াকাটাসহ সমগ্র কলাপাড়া পুণ্যার্থী রাসভক্তদের পদভারে মুখরিত হয়ে ওঠে। নির্ঘুম রাত কাটিয়ে সকালে সাগরের জলে সূর্য ওঠার সঙ্গে সঙ্গে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজারো নর-নারী পুণ্যস্থানে নেমে পড়ে। স্থানের আগমুহূর্তে অনেক মানতকারী মাথার চুল ন্যাড়া করাসহ প্রায়শ্চিত্ত করেছেন। পুণ্যের আশায় হাতে বেলপাতা, ফুল, ধান, দূর্বা, হরিতকী, ডাব, কলা, তেল, সিঁদুর সাগরবক্ষে অর্পণ করে। পুরো সৈকতজুড়ে রাসভক্ত নারীর উলুধ্বনিতে সরগরম হয়ে ওঠে। মন্ত্র পাঠ করে আগতরা সম্পন্ন করেন পুণ্যস্থান।