২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পৌর নির্বাচনে অংশ নেয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধাত দেননি খালেদা

  • সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে দুই ঘণ্টা বৈঠক করলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। বুধবার রাতে চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠককালে খালেদা আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে যোগ্য প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ার বিষয়ে সহযোগিতা কামনা করেন। তবে সরকারকে চাপে রেখে দলীয় নেতাকর্মীদের মামলা-গ্রেফতার বন্ধসহ কিছু দাবি আদায় করার কৌশল নেয়ার সিদ্ধান্ত হয় বৈঠকে। এই কৌশলের অংশ হিসেবেই বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে দলের মুখপাত্র ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, বৈঠকে পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে চেয়ারপার্সন এ বিষয়ে কোন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেননি। আজ (বৃহস্পতিবার) রাতে ২০ দলীয় জোটের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এক প্রশ্নের জবাবে রিপন বলেন, সর্বস্তরে বিএনপির কমিটি পুনর্গঠন এবং পরবর্তী জাতীয় কাউন্সিলসহ দেশের সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে।

বৈঠক সূত্রে জানা যায়, দুই-একজন নেতা আসন্ন পৌর নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে বিরোধিতা করলেও অধিকাংশ নেতাই নির্বাচনে অংশগ্রহণের পক্ষে মত দেন। তাদের যুক্তি হচ্ছে, পৌর নির্বাচনে অংশ না নিলে তৃণমূল পর্যায়ে দল দুর্বল হয়ে পড়বে। এছাড়া দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে নির্বাচনে কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ নিলে তৃণমলে বিভাজন সৃষ্টি হবে। এ কারণেই বিএনপিকে এ নির্বাচনে অংশ নিতে হবে। এর আগে রাত সোয়া নয়টা থেকে রাত সোয়া ১১টা পর্যন্ত একটানা বৈঠক চলে। বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে মওদুদ আহমদ, মাহবুবুর রহমান, আ স ম হান্নান শাহ, জমির উদ্দিন সরকার, আবদুল মঈন খান ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া দলের ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, আবদুল্লাহ আল নোমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ওসমান ফারুক, শামসুজ্জামান দুদু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত, দুই মাসেরও বেশি সময় লন্ডনে অবস্থান শেষে দেশে ফেরার পর খালেদা জিয়া দলীয় নেতাদের সঙ্গে প্রথমবারের মতো আনুষ্ঠানিক বৈঠক এটি। ব্যক্তিগত সফরে গত ১৫ সেপ্টেম্বর লন্ডন যান খালেদা। ২১ নবেম্বর রাতে দেশে ফেরেন তিনি।