২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘আমির-শাহরুখের মাথা কেটে প্রকাশ্যে ঝোলানো হোক’

  • যারা আমাকে গালি দিচ্ছেন, তারা আমার মন্তব্যেরই প্রমাণ দিচ্ছেন ॥ আমির খান

কুমন্তব্য আর অসহিষ্ণুতার স্রোতে নয়া সংযোজন। কিংবদন্তি বলিউড অভিনেতা দিলীপ কুমার, শাহরুখ খান, আমির খান- সকলেই সাপের মতো। তাদের ভালবাসা আর দুধকলা দিয়ে কালসাপ পোষা একই ব্যাপার। এমনই মন্তব্য করেছেন ভারতের মহারাষ্ট্রের পরিবেশমন্ত্রী রামদাস কদম। এদিকে চরম অসহিষ্ণুতার কালি-সংস্কৃতি থেকে সরে এসে বুধবার শিবসেনা বলেছে, আমির খানকে কেউ চড় মারলে তাকে এক লাখ রুপী পুরস্কার দেবে শিবসেনা। একই দিনে আরও বড় ফতোয়া জারি করেছে অখিল ভারতীয় হিন্দু মহাসভা। আমিরের সঙ্গেই বলিউড বাদশাহ শাহরুখের মাথা কেটে প্রকাশ্যে ঝুলিয়ে রাখার কথা বলেছে তারা। খবর ওয়ান ইন্ডিয়া ও এই সময়ের।

শিবসেনা নেতা কদম বলেন, আমির খান যদি দেশকে আর ভাল না বাসেন, তাহলে তিনি পাকিস্তানে চলে যেতে পারেন। দিলীপ কুমার থেকে শাহরুখ খান এবং আমির- এদের প্রত্যেককে আমরা প্রচুর ভালবাসা দিয়েছি। কিন্তু তারা যে সব মন্তব্য করেন তাতে মনে হয় আমরা সাপ পুষেছি। আমিরের মন্তব্য নিয়ে পুলিশী পদক্ষেপ হওয়া উচিত। নতুন ছবি ‘দঙ্গল’ এর শুটিংয়ের জন্য লুধিয়ানায় রয়েছেন আমির। শিবসেনা পাঞ্জাব সভাপতি রাজীব ট্যান্ডন বলেছেন, আমির যে হোটেলে রয়েছেন সেখানকার ম্যানেজার, কর্মী ও দঙ্গলের পুরো শুটিং টিম যাতে এক লাখ রুপি পান তার সুযোগ দিচ্ছি। আমির খানের গালে যিনি চড় মারতে পারবেন, সেই সাহসী, দেশভক্ত ব্যক্তিটিকে আমরা এক লাখ রুপি নগদ পুরস্কার দেব। শুধু রাজীব নন, বুধবার শিবসেনাও জানায়, আমিরকে প্রতিটি চড়ের পুরস্কারমূল্য এক লাখ রুপী। এদিকে গেরুয়া রাজনীতির চরম অসহিষ্ণুতার ছবি ফের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দিল হিন্দু মহাসভার অস্থায়ী সভাপতি কমলেশ তিওয়ারি। তিনি বুধবার বলেছেন, এই দেশে এর আগে কত নরবলির ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু তাই বলে কোন হিন্দু বা মুসলিম বলেননি, এই দেশ আর আমাদের থাকার যোগ্য নেই। আমির ও শাহরুখের মতো যেসব অভিনেতা দেশকে অসহিষ্ণু বলে মাতৃভূমিকে অপমান করছে, তারা দেশদ্রোহী। তাদের ভারত ছেড়ে চলে যাওয়া উচিত। আর এইসব লোকের মাথা কেটে নিয়ে প্রকাশ্যে রাস্তায় ঝুলিয়ে দেয়া উচিত। এদিকে আমির বুধবার বলেছেন, যারা আমাকে অশালীনভাবে গালি দিচ্ছেন, তারা আমার মন্তব্যেরই প্রমাণ দিচ্ছেন। পাশাপশি তিনি এটিও বলেন, যারা আমাকে দেশদ্রোহী বলছে, তাদের আমি বলতে চাই ভারতীয় হিসাবে আমি গর্বিত। তার জন্য আমার কারোর অনুমতি বা অনুমোদন লাগবে না। আমার মনের কথা বলার জন্য যারা আমাকে গালি দিচ্ছে, আমি দুঃখিত যে তারা আমার মতামতকেই সমর্থন দিচ্ছেন। অন্যদিকে যারা আমিরের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের জন্য তিনি বলেন, যারা আমার পাশে ছিলেন তাদের ধন্যবাদ।

আফগানিস্তানে ড্রোন হামলায় পাক তালেবান কমান্ডার নিহত

আফগানিস্তানের খোস্ত প্রদেশের দামা এলাকায় বুধবার মার্কিন ড্রোন হামলায় পাকিস্তানী তালেবানের সিনিয়র এক কমান্ডার নিহত হয়েছে। পাকিস্তানের উপজাতীয় অঞ্চলের গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলেছেন, উত্তর ওয়াজিরিস্তানের শাহাদিয়ানু পাতালা শহরের সীমান্তবর্তী এলাকায় এই হামলা চালানে হয়। খবর এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

খান সাঈদ নামে ওই কমান্ডার পাকিস্তানী তালেবানের দলছুট অংশের নেতা ছিলেন। তিনি সাজনা নামেও পরিচিত। পাকিস্তানী গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলেছেন, ড্রোন হামলার আরও ১২ জঙ্গী নিহত ও ২০ আহত হয়েছে। অপর এক পাকিস্তানী গোয়েন্দা কর্মকর্তাও এই কমান্ডারের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে মার্কিন কর্মকর্তারা এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনও মন্তব্য করেনি। পেশোয়ারভিত্তিক সিনিয়র এক সামরিক কর্মকর্তা বলেন, সানজা পাকিস্তান তালেবানের প্রথম সারির নেতা ছিলেন। পাকিস্তানী তালেবানের সংগঠন তেহরিক-ই-তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরে তাকে খুঁজছিল পাকিস্তানী নিরাপত্তা বাহিনী ও মার্কিন বাহিনী।