১১ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রিয়ালের জয়ে রোনাল্ডোর জোড়া গোল

রিয়ালের জয়ে রোনাল্ডোর জোড়া গোল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রতিশোধ নেয়া হলো না ম্যানচেস্টার সিটির। নিজেদের মাঠে জুভেন্টাসের কাছে হার দিয়ে মিশন শুরু করেছিল ইতিহাদের দলটি। এরপর টানা তিন জয়ে ‘ডি’ গ্রুপ থেকে সবার আগে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করে ইংলিশ ক্লাবটি। কিন্তু নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে এসে আবারও হারের স্বাদ পেয়েছে ম্যানুয়েল পেলেগ্রিনির দল। এবারও তারা আটকে গেছে সেই জুভদের কাছে।

বুধবার রাতে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগ ফুটবলের ফিরতি লেগের ম্যাচে স্বাগতিক জুভেন্টাসের কাছে ১-০ গোলে হার মানে অতিথি ম্যানসিটি। তুরিনের জুভেন্টাস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে স্বাগিতকদের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন ক্রোয়েশিয়ান স্ট্রাইকার মারিও মানদুকিচ। এই জয়ে গ্রুপের শীর্ষে উঠে নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়েছে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়নদের। আর আগেই সেরা ষোলোর ছাড়পত্র পেয়েছে ম্যানসিটি। এই গ্রুপ থেকে তাই বরুসিয়া মনশেনগ্লাডব্যাচ ও সেভিয়ার বিদায় নিশ্চিত হয়েছে।

‘এ’ গ্রুপ থেকে নকআউট পর্ব আগেই নিশ্চিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এ কারণে পরশু রাতে অনেকটাই নির্ভার হয়ে মাঠে নেমেছিল স্প্যানিশ পরাশক্তিরা। লা লীগায় টানা দুই ম্যাচ হারের পর ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য মরিয়া হয়েই মাঠে নেমেছিল রিয়াল। সেই প্রচেষ্টায় সফলও হয়েছে রাফায়েল বেনিতেজের শিষ্যরা। দলের সেরা তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর জোড়া গোলের সুবাদে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার ডোনেস্ককে ৪-৩ গোলে হারিয়ে নাটকীয় জয় পেয়েছে অতিথিরা। ম্যাচের ১৮ মিনিটে দলের পক্ষে প্রথম গোল করেন রোনাল্ডো। এই এক গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় রিয়াল।

বিরতির পর যেন গোলের জন্য আরও মরিয়া হয়ে মাঠে নেমেছিলেন রিয়ালের ফুটবলাররা। ৫০ ও ৫২ মিনিটে দুই গোল করে দলের জয় অনেকটাই নিশ্চিত করে ফেলেন লুকা মডরিচ ও ডানিয়েল কারভাহাল। ৭০ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোল করে রিয়ালকে ৪-০ ব্যবধানে এগিয়ে নেন সি আর সেভেন। এক হালি গোল হজমের পরও ম্যাচের শেষ দিকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় স্বাগতিক ডোনেস্ক। ৭৭ মিনিটে পেনাল্টি থেকে এক গোল পরিশোধ করেন অ্যালেক্স টেইক্সেইরা। ৮৩ মিনিটে আরেকটি গোল করে ব্যবধান আরও কমিয়ে আনেন ডেনটিনহো। ৮৮ মিনিটে নাটকীয়ভাবে আরও একটি গোল করে বসেন টেইক্সেইরা। এ সময় রিয়াল সমর্থকদের মধ্যে হয়তো ড্রয়ের আশঙ্কা ভর করেছিল। তবে খেলার বাকি সময়ে আর কোন গোল করতে পারেনি শাখতার। ফলে ৪-৩ গোলের নাটকীয় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আসরের ইতিহাসের সর্বাধিক চ্যাম্পিয়নরা। ‘এ’ গ্রুপের অপর ম্যাচে সুইডেনের মালমোর বিরুদ্ধে ৫-০ গোলের বড় ব্যবধানের জয় দিয়ে নকআউট পর্বের টিকেট কেটেছে ফরাসী লীগ জয়ী প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইন। পিএসজির জয়ে জোড়া গোল করেন আর্জেন্টাইন তারকা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। একটি করে গোল করেন জ¬াতান ইব্রাহিমোভিচ, ল্কুাস মাউরা ও আডরিয়েন রাবিয়ট। ডাচ ক্লাব পিএসভি আইন্দহোভেনের কাছে প্রথম লেগে হারের প্রতিশোধ নিতে পারেনি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ফলে এক ম্যাচ হাতে রেখে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের নকআউট পর্বও নিশ্চিত করা হয়নি রেড ডেভিলসদের। ঘরের মাঠ ওল্ডট্র্যাফোর্ডে অতিথি ক্লাবটির সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে ম্যানইউ। গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পিএসভির মাঠ থেকে ২-১ গোলে হেরে ফিরেছিল ইংলিশ পরাশক্তিরা। এই ড্রয়ের পর ‘বি’ গ্রুপে পাঁচ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ইউনাইটেড। গ্রুপের আরেক ম্যাচে সিএসকেএ মস্কোকে ২-০ গোলে হারিয়ে শীর্ষে উঠেছে জার্মান ক্লাব উফলসবার্গ। তাদের পয়েন্ট ৯। গ্রুপের ম্যাচে উলফসবার্গের বিরুদ্ধে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে নামবে ম্যানইউ।

তুরস্কের ক্লাব গালাতাসারাকে হারিয়ে এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ও এফসি আস্টানার সঙ্গে ড্র করে বেনফিকা ‘সি’ গ্রুপ থেকে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে। ভিসেন্টে ক্যালডেরনে গালাতাসারেকে ২-০ গোলে হারায় এ্যাটলেটিকো। আর আস্টানার মাঠে ২-২ গোলে ড্র করে পর্তুগীজ চ্যাম্পিয়ন বেনফিকা। পাঁচ ম্যাচে ১০ করে পয়েন্ট নিয়ে এই গ্রুপ থেকে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে দল দু’টি।