২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ধর্ষিত স্কুলছাত্রী মামলা করে প্রাণভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে

স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ ॥ গৌরীপুরে ধর্ষণের শিকার অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী মামলা করার পর থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। অভিযোগ মামলার আসামিরা প্রকাশ্য ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং ধর্ষিত স্কুলছাত্রীসহ তার পরিবারের সদস্যদের মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে। অথচ পুলিশ মামলার আসামিদের গ্রেফতার করছে না বলে অভিযোগ ধর্ষিতার পরিবারের। এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে আসামিদের গ্রেফতার দাবি করেছেন মানবাধিকার কমিশন ময়মনসিংহের সভাপতি এ্যাডভোকেট এএইচ খালেকুজ্জামানসহ স্থানীয় নারী নেত্রীবৃন্দ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গৌরীপুর উপজেলার মাওহা ইউনিয়নের বীর আহাম্মদপুর গ্রামের প্রভাবশালী এসএম আরিফ রতনের বখাটে ছেলে এসএম আলীম ছোটন একই গ্রামের দর্জি কারিগর আবু ইউসুফ বাচ্চুর সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছাত্রীকে প্রেম নিবেদনসহ নানাভাবে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এ নিয়ে ছোটনের বাবা মায়ের কাছে নালিশ ছাড়াও এলাকায় দেনদরবারও হয়েছে। এতে ক্ষুব্ধ ছোটন চলতি বছরের জুন রাতে বসতঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এই ঘটনায় ধর্ষিত স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে জানাজানি হয় আশপাশে। এ সময় স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক গর্ভপাত ঘটানোর জন্য ছোটন ও তার পরিবারের সদস্যরা চাপসহ হুমকি দিলে বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্যদের জানায় ধর্ষিতার পরিবার। এ নিয়ে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় গত ৩ অক্টোবর স্থানীয় দেনদরবারে ছোটনের পরিবার স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের মাধ্যমে বউ করে ঘরে তুলে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। কিন্তু পরে এ নিয়ে টালবাহানা করে সময়ক্ষেপণ করতে থাকলে বিষয়টি থানায় গড়ায়। স্কুলছাত্রীর বাবা আবু ইউসুফ বাচ্চু বাদী হয়ে ছোটনকে আসামি করে গৌরীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এখন পর্যন্ত এই মামলার আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। মামলার বাদী আবু ইউসুফ বাচ্চু ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে এসে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে জানায়, মামলা তুলে নিতে আসামি পরিবারের পক্ষ থেকে নানাভাবে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এমতাবস্থায় স্কুলছাত্রী ও এক ছেলেসহ মামলার বাদী ঢাকায়, আরেক পুত্র স্থানীয় বাকরকোনা গ্রামের নানার বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে। অভিযোগ প্রভাবশালী আসামির বাবা ও তাদের নিকটাত্মীয় হায়দার রশিদ ওরফে জুয়েল, লিটন মিয়া ও টিটু মিয়াসহ এলাকার বখাটে সন্ত্রাসী ক্যাডাররা প্রতিনিয়ত বাড়িতে চড়াও হয়ে বাদীর স্ত্রীকে মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে গৌরীপুর থানার এসআই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাশারের দাবি, মূল আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। হুমকির ব্যাপারে তিনি মামলার বাদীকে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দেন।