২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শহীদ ডাঃ মিলন দিবস আজ

শহীদ ডাঃ মিলন দিবস আজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ ২৭ নবেম্বর, শহীদ ডাঃ মিলন দিবস। ১৯৯০ সালের এই দিন স্বৈরাচারবিরোধী গণআন্দোলনের অগ্নিঝরা উত্তাল সময়ে স্বৈরশাসকের লেলিয়ে দেয়া ঘাতকদের গুলিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় নির্মমভাবে নিহত হন ডাঃ শামসুল আলম খান মিলন। তিনি ছিলেন সামরিক স্বৈরাচারবিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সংগঠক, বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) যুগ্মসচিব ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের শিক্ষক। দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী। শহীদ ডাঃ শামসুল আলম খান মিলনের আত্মদানের মধ্য দিয়ে সেদিনের স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে নতুন গতিবেগ সঞ্চারিত হয়। তাঁর আত্মদান সে সময় চলমান আন্দোলনকে গণঅভ্যুত্থানে রূপ দেয়, আন্দোলনকে চূড়ান্ত পরিণতির দিকে নিয়ে যায়। এ মর্মান্তিক ঘটনার মাত্র ১০ দিনের মাথায় ছাত্র-জনতার তীব্র গণঅভ্যুত্থানের মুখে স্বৈরতন্ত্রের পতন হয়। দেশ যাত্রা শুরু করে গণতান্ত্রিক ধারায়। শহীদ ডাঃ মিলনের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ওই দিন থেকে প্রতিবছর ২৭ নবেম্বর ‘শহীদ ডাঃ মিলন দিবস’ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। দিনটি উপলক্ষে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক দল হাতে নিয়েছে নানা কর্মসূচী। প্রতিবারের ন্যায় এবারও বিভিন্ন সংগঠন যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালনে নিয়েছে নানা কর্মসূচী। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের মিলন চত্বরে স্মরণসভার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ)। অন্যান্য কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে সকাল ৭টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ চত্বরে ডাঃ শামসুল আলম খান মিলনের সমাধিতে ফাতেহা পাঠ, বিশেষ মোনাজাত ও শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের (জাসদ) কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে সকাল ৭টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ প্রাঙ্গণের শহীদ বেদি ও সকাল ৮টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ স্মৃতি ভাস্কর্যে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ।

রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ তাঁর বাণীতে বলেছেন, বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ডাঃ মিলন এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম। ১৯৯০ সালের এই দিনে তিনি শাহাদাতবরণ করেন। সেদিনের তাঁর সেই আত্মদান চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে গণঅভ্যুত্থানে রূপ দেয়, সুগম হয় গণতন্ত্র পুনর্প্রতিষ্ঠার পথ। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ডাঃ মিলনের অবদান জাতি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।

স্বৈরাচার বিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নব্বইয়ের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম পেশাজীবী নেতা ডাঃ শামসুল আলম খান মিলনের ২৪তম শাহাদত বার্ষিকীতে আমি তাঁর স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। ডাঃ মিলনের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন প্রধানমন্ত্রী।