২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশের উন্নয়নের সঙ্গী হবে চীন ॥ প্রধানমন্ত্রী

বিডিনিউজ ॥ চীনসহ বন্ধুপ্রতীম দেশগুলোর সহযোগিতায় বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের ও উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হবে বলে আশাপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক বিভাগের ভাইস মিনিস্টার চেন ফেংজিয়াংয়ের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় একথা বলেন শেখ হাসিনা। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের বলেন, চীনা প্রতিনিধি দলের কাছে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে চীনের ‘ব্যাপক অবদানের’ কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

গত মে মাসে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল চীন সফরে গিয়ে কমিউনিস্ট পার্টির নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

ওই সফরের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুই দলের মধ্যে সম্পর্কের আরও উন্নতি ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য ভবিষ্যতে এ ধরনের সফর আরও হবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সম্পর্কের বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১৯৫২ ও ১৯৬৭ সালে চীন সফরের কথা স্মরণ করে শেখ হাসিনা বলেন, জাতির জনক চীন নিয়ে লিখেছিলেন, সেটা প্রকাশের অপেক্ষায় আছে।

চীনের উন্নয়ন নিয়ে তিনি যে অনুমান করেছিলেন, তাই এখন হচ্ছে। ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও ভাগ্নে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি চাইনিজ জানেন বলে প্রতিনিধি দলকে জানান শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিন পিংয়ের বাংলাদেশ সফরে অপেক্ষায় রয়েছেন তিনি।

এ সময় দেশের উন্নয়নে নেয়া আওয়ামী লীগ সরকারের নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

“আমরা খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছি, মাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে বই দিচ্ছি এবং গ্রামের মানুষদের কাছে চিকিৎসা সেবা পৌঁছে দিচ্ছি। বিদ্যুত ও অবকাঠামো খাতে আরও উন্নতি করতে চাই আমরা। এখন আমাদের সামনে চ্যালেঞ্জ দারিদ্র্য বিমোচন।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে তার সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি রয়েছে।

চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও চীনের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন শেখ হাসিনার কাছে পৌঁছে দেন চেন ফেংজিয়াং।

তিনি শেখ হাসিনার ‘মহান নেতৃত্বের’ প্রশংসা করে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি ও মানুষের জীবনমানের উন্নয়নের জন্য তাকে অভিনন্দন জানান।

গত মে মাসে আওয়ামী লীগ নেতাদের চীন সফর ফলপ্রসু হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

চীনের তথ্য-প্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি দেখতে জয় ও ববিকে চীন সফরের আমন্ত্রণ জানান চেন ফেংজিয়াং।

সাক্ষাতের সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা গওহর রিজভী, আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ফারুক খান ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সুরাইয়া বেগম।