২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দোয়া চেয়ে প্রার্থীদের ব্যানার ফেস্টুন

  • লালমনিরহাট সদর ও পাটগ্রাম

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ২৬ নবেম্বর ॥ জেলায় দুটি পৌরসভা লালমনিরহাট সদর ও পাটগ্রাম। পৌর এলাকায় যেদিকে চোখ যায়, শুধু প্রার্থীদের ব্যানার ফেস্টুন আর পোস্টার। কেউ বা মেয়র কেউ কাউন্সিলর ও আবার মহিলা কাউন্সিলর পদে নির্বাচনে প্রার্থী হতে দোয়া চাইছেন।

এ বছর প্রথমবারের মতো পৌর নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীরা রাজনৈতিক দলের মনোনয়নে প্রার্থী হবে।

লালমনিরহাট পৌরসভায় যারা দলীয় প্রার্থী হতে দৌড়ঝাঁপ করছেÑ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান মেয়র বিয়াজুল ইসলাম রিন্টু। এছাড়া রয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এ্যাডভোকেট আশরাফ হোসেন বাদল, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন, জেলা শ্রমিক লীগের নেতা কাজী নজরুল ইসলাম তপন, জেলা যুবলীগের কোষাধ্যক্ষ রেজাউল করিম স্বপন, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও প্যানেল মেয়র এসএম ওয়াহিদুল ইসলাম সেনা। এদিকে জাপা নেতা প্রাক্তন মেয়র মোশারফ হোসেন রানা বিএনপির প্রার্থী হতে লবিং করছে।

জাতীয় পার্টি হতে প্রচারে নেমেছেন পৌর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান ডাব্লু ও অবসরপ্রাপ্ত পুলিশের এসআই আব্দুর রশিদ। স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হতে প্রচার চালাচ্ছেন প্রাক্তন পৌর চেয়ারম্যান মৃত আব্দুস সোবহানের বড় ছেলে একেএম হুমায়ন আকতার শিমুল। পাটগ্রাম পৌরসভায় বর্তমান মেয়র শমসের আলী আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে পর পর দুই বার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এবার তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী। এছাড়া পাটগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন নাজু মাস্টার ও পাটগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সাধারনণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, পাটগ্রাম পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলী আহম্মেদ।

বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী পাটগ্রাম উপজেলার আহ্বায়ক মোস্তাফা সালেউজ্জামান ওপেল ও পৌর বিএনপির সদস্য সচিব মোরশেদ আলম শ্যামল। জাতীয় পার্টি হতে মনোনয়ন প্রত্যাশী পাটগ্রাম উপজেলার সাধারণ সম্পাদক কুদরতী এলাহী বাবুল। জাপার এখানে কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে না।

রাজশাহীতে ঘরে বাইরে লড়াই শুরু

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ঘরে-বাইরে লড়াই শুরু হয়েছে প্রার্থীদের। রাজশাহীর ১২ পৌরসভায় যাদের তালিকা কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে তারা হলেন, গোদাগাড়ী পৌরসভা বিএনপির সদস্য গোলাম কিবরিয়া রুনু, যুবদলের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান বিপ্লব এবং সাবেক মেয়র আনোয়ারুল ইসলাম। কাঁকনহাট পৌরসভায় পৌর বিএনপির সভাপতি ইসমাইল হোসেন খান ও বিএনপি নেতা হাফিজ উদ্দিন। তানোর পৌরসভায় বর্তমান মেয়র ফিরোজ সরকার, পৌর বিএনপির সভাপতি বিশ্বনাথ সরকার ও উপজেলা যুবদলের সভাপতি মিজানুর রহমান। মু-ুমালা পৌরসভায় পৌর বিএনপির সভাপতি মোজ্জাম্মেল হক, পৌর যুবদলের সভাপতি ফিরোজ কবীর। এছাড়া কেশনহাট পৌরসভায় পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র আলাউদ্দিন আলো, পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি সেলিম রেজা, পৌর ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী, উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান। বাগমারার ভবানীগঞ্জ পৌরসভায় পৌর বিএনপির সভাপতি ও বর্তমান মেয়র আবদুর রাজ্জাক ও পৌর যুবদলের সভাপতি শাহিনুর ইসলাম শাহীন। তাহেরপুর পৌরসভায় পৌর বিএনপির সভাপতি আবু নঈম শামসুর রহমান মিন্টু, পৌর যুবদলের সভাপতি আব্দুল আলিম বাবু ও পৌর ছাত্রদলের সভাপতি এসএম আরিফুল ইসলাম আরিফ। দুর্গাপুর পৌরসভায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি আকবর আলী বাবলু, উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা সৈয়দ জামাল উদ্দিন, সাবেক মেয়র ও বিএনপি নেতা সাইদুর রহমান মন্টু এবং বিএনপি নেতা মাইনুল ইসলাম রঞ্জু।

পুঠিয়া পৌরসভায় পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল মিয়া, পৌর বিএনপির সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, সাবেক সভাপতি আলী হোসেন ও মমতাজ উদ্দিন লাল্টু।