২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সন্ত্রাস ও জঙ্গী দমনে সহযোগিতা বৃদ্ধির তাগিদ যুক্তরাজ্যের

কূটনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সকল স্বেচ্ছাসেবীকে ফিরিয়ে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে স্বেচ্ছাসেবীদের ফিরিয়ে নেবে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। এদিকে সন্ত্রাস ও জঙ্গী হামলার মোকাবেলায় আন্তর্জাতিক সহযোগিতা আরও বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছে যুক্তরাজ্য। বগুড়ায় শিয়া মসজিদে হামলার প্রেক্ষিতে শুক্রবার অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে পৃথক বার্তায় এসব বলা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্র দফতর থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশে নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে এখান থেকে স্বেচ্ছাসেবীদের ফিরিয়ে নেবে অস্ট্রেলিয়া সরকার। বগুড়ায় শিয়া মসজিদে হামলার ঘটনায় আইএস দায় স্বীকারের পর দেশটির পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনার উল্লেখ করে বাংলাদেশে ভ্রমণরত নিজ দেশের নাগরিকদের নতুন করে সতর্ক বার্তা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

এতে বলা হয়েছে, অস্ট্রেলিয়া সরকার ইতোমধ্যেই বাংলাদেশে অবস্থানরত স্বেচ্ছাসেবীদের স্বেচ্ছায় অস্ট্রেলিয়ায় ফিরে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে। এছাড়া আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে অস্ট্রেলীয় সরকারের অর্থায়নে নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবীদের প্রত্যাহার করে নেয়া হবে। বিবৃতিতে বলা হয়, গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় একটি শিয়া মসজিদে হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএস)। অস্ট্রেলীয়দের উদ্দেশে সেখানে আরও বলা হয়েছে, বাংলাদেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রে আগের দেয়া সতর্ক বার্তার কোন পরিবর্তন হয়নি। অস্ট্রেলিয়া সরকারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রে দেশটির নাগরিকদের উচ্চমাত্রার সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শও দেয়া হয়েছে।

সেপ্টেম্বর মাসে দুটি টেস্ট খেলতে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বাংলাদেশে আসার কথা থাকলেও সম্ভাব্য নিরাপত্তা ঝুঁকির তথ্য পাওয়ার কথা জানিয়ে তা স্থগিত করে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। অস্ট্রেলিয়ার সেই ঘোষণার পরেই বাংলাদেশে ইতালি ও জাপানের দুই নাগরিক নিহত হয়। সে সময় জাপানও বাংলাদেশ থেকে তাদের স্বেচ্ছাসেবীদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নেয়।

এদিকে বগুড়ায় নামাজের সময় শিয়া মসজিদে হামলা ও হতাহতের ঘটনায় নিন্দা ও শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট গিবসন। শুক্রবার ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এই প্রতিক্রিয়া জানান। বিবৃতিতে রবার্ট গিবসন বলেছেন, ‘বগুড়ার কাছে একটি মসজিদে প্রার্থনার সময় হামলার ঘটনায় আমি হতভম্ব। বিশ্বাস ও ধর্মীয় রীতি পালনের কারণে কোন মানুষের ওপর হামলা কিছুতেই গ্রহণ নয়। হামলার শিকার ও তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি তিনি গভীর সমবেদনা জানান।

গিবসন আরও বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশে সহিংস চরমপন্থী হামলার ধারাবাহিকতায় বগুড়ায় শিয়া মসজিদে হামলা সর্বশেষ সংযোজন। প্যারিস, মালি ও বৈরুতের হামলার ঘটনা আমরা দেখেছি। এ থেকে প্রতীয়মান হয়, বিশ্বের কোন দেশই এ ধরনের হামলা থেকে নিরাপদ নয়। এ ধরনের সন্ত্রাস ও জঙ্গী হামলার মোকাবেলা ও এর উৎস খুঁজে বের করতে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বাড়ানো প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করেন গিবসন।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বগুড়ার আল মোস্তফা মসজিদে অজ্ঞাত তিন বন্দুকধারী হামলা চালায়। বন্দুকের গুলিতে নিহত হন ওই মসজিদের মুয়াজ্জিন মোয়াজ্জেম হোসেন, ইমাম শাহিনুর রহমানসহ আরও তিনজন আহত হন। ইসলামিক স্টেট (আইএস) হামলার ঘটনার দায় স্বীকার করেছে বলে ইতোমধ্যে জানিয়েছে সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপ।