২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শীতকালীন সবজিতে ভরে গেছে বাজার, দামও কমছে

  • পেঁয়াজ ডিমের দাম বাড়ছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শীতকালীন শাক-সবজিতে ভরে উঠছে কাঁচাবাজার। কমে আসছে দামও। এজন্য সবজির বাজারে স্বস্তি মিলছে ভোক্তাদের। ডোবা, নালা, খালবিল ও নদীর পানি কমতে শুরু করায় বাজারে আসতে শুরু করেছে দেশী প্রজাতির মিঠা পানির মাছ। এসব মাছের দামও কিছুটা কম। কিন্তু দাম বাড়ছে পেঁয়াজ, ডিম, ইলিশ মাছ এবং হাঁসের। চাল, ডাল, ভোজ্যতেল, চিনি এবং আটার দাম স্থিতিশীল রয়েছে। অপরিবর্তিত রয়েছে মুরগি, খাসি ও গরুর মাংসের দাম।

শুক্রবার রাজধানীর পলাশীবাজার, নিউমার্কেট এবং মোহাম্মদপুর টাউন হল মার্কেট ঘুরে নিত্যপণ্যের দরদামের এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

এদিকে, কাঁচাবাজারে শাক-সবজিতে দামের স্বস্তি থাকলেও বেড়েছে ডিমের দাম। গত তিনদিনে প্রতি হালিতে ডিমের দাম বেড়েছে তিন থেকে চার টাকা। ব্যবসায়ীদের দাবি, বাজারে ডিমের সরবরাহ কম থাকায় দাম বেড়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে সরবরাহ স্বাভাবিক না হলে আরও বাড়বে বলে তাদের ধারণা। নিউমার্কেটের ডিম বিক্রেতা শাহ আলম জনকণ্ঠকে বলেন, একদিন আগে সাড়ে ৭০০ টাকায় ১০০ ডিম বিক্রি করলেও তা শুক্রবার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৮০ টাকা। পাইকারিতে ৩২ টাকা হালি বিক্রি হলেও খুচরায় ৩৬ টাকা বিক্রি হচ্ছে, যা তিনদিন আগে ছিল ৩২ টাকা। তিনি বলেন, সরবরাহ কমে যাওযায় ডিমের দাম বাড়ছে। সরবরাহ স্বাভবিক না হলে দাম আরও বাড়তে পারে।

একই অবস্থা পেঁয়াজ ও পুরনো আলুর ক্ষেত্রেও। প্রতিকেজি দেশী পেঁয়াজ ৭০-৭৫ এবং আমদানিকৃত ভারতীয় ৫০-৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এক্ষেত্রেও সরবরাহ কম হওয়াকে দায়ী করছেন ব্যবসায়ীরা। রাজধানীর নিউমার্কেটের পেঁয়াজ বিক্রেতা মনির হোসেন বলেন, পাইকারি বাজারে এখন দাম বাড়তি। তাই খুচরা ক্রেতাদেরও বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। তিনি বলেন, গত সপ্তায় পেঁয়াজের দাম কম ছিল। কিন্তু এ সপ্তায় দাম বাড়ছেই। বাড়ছে পুরনো আলুর দামও। জাত ও মানভেদে প্রতিকেজি পুরনো আলু বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৪ টাকা পর্যন্ত। তবে পানি কমতে শুরু করায় বাজারে মিঠা পানির বিভিন্ন প্রজাতির মাছের দাম হ্রাস পেয়েছে। তাই দেশী মাছ কিনে খুশি ক্রেতা। পলাশীবাজারে মাছ কিনতে এসে আলীমুজ্জামান জানালেন, দেশী কই, পুঁটি, চিংড়ি, শৌল, টাকি, বাতাসি, বাটা, টেংরা, বোয়াল, আইর, কাজলীসহ সব ধরনের মাছের দাম কিছুটা কমেছে। এজন্য দেশী মাছ কেনা হয়েছে। তিনি বলেন, শীতের লাউয়ের সঙ্গে শৌলমাছ যেন এক অপূর্ব স্বাদের তরকারি। এ কারণে শৌলমাছ নেয়া হয়েছে। সরবরাহ বাড়ায় মাছের দামও কম।

এদিকে, শীতের সবজির পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় কাঁচাবাজারে গত সপ্তাহের তুলনায় দামে তেমন কোন হেরফের হয়নি। কোন কোন সবজির দাম কমেছে। নতুন আলু, দেশী বেগুন ও টম্যাটো ছাড়া প্রায় সব সবজির দাম ১৫ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে রয়েছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বিক্রি হচ্ছে এই দামে।

টাউন হল মার্কেটের সবজি বিক্রেতা খালেক জানান, মুলা ১৫ থেকে ২০ টাকা, বাঁধাকপি ২০ থেকে ২৫, ফুলকপি ২৫ থেকে ৩৫ এবং বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা দরে। শীতের সবজির সরবরাহ ভাল থাকায় বাজার স্থিতিশীল বলে জানান তিনি।

এছাড়াও শীতকালীন দেশী টম্যাটো বিক্রি হচ্ছে প্রতিকেজি ৮০-১০০ টাকায় ও শীতকালীন নতুন আলু বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ টাকায়। কিছুদিন আগেও ২০০ টাকা কেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হলেও এখন ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া নতুন চাল বাজারে আসতে শুরু করেছে।