২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইএসবিরোধী যুদ্ধ ॥ ফরাসী মন্ত্রীর নয়া প্রস্তাব

  • ‘আসাদ ছাড়া ঐকমত্যের সরকার গঠিত হলেই কেবল সরকারী বাহিনীকে কাজে লাগাব’

ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে যুদ্ধে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের অনুগত বাহিনীকেও কাজে লাগানো যেতে পারে। তবে যখন আসাদকে ছাড়াই দেশটিতে নতুন রাজনৈতিক নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হবে। ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী লরাঁ ফাবিয়াসের এমন মন্তব্য পশ্চিমা দেশগুলো ও রাশিয়ার মধ্যেকার বিরোধকে আরও জোরালো করল। এদিকে ফরাসী প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদ প্যারিসের নৃশংস হামলার পর আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে একটি অভিন্ন ফ্রন্ট গঠনের আহ্বান জানিয়েছেন। ওই হামলায় অন্তত ১৩০ জন লোক নিহত হয়েছে। খবর গার্ডিয়ানের।

ফাবিয়াস শুক্রবার ফরাসী আরটিএস রেডিওকে বলেছেন, ভূমিতে আমাদের সৈন্যরা লড়াই করবে না। তবে সেখানে থাকবে ফ্রি সিরিয়ান আর্মির সিরীয় সৈন্যরা, সুন্নি আরব দেশগুলোর সেনারা। পাশাপাশি তিনি বলেছেন, সিরিয়ার সরকারী বাহিনীই বা বাদ যাবে কেন? তারাও এই লড়াইয়ে অংশ নেবে। শুধু বিমান হামলা চালিয়ে আইএসকে ধ্বংস করা সম্ভব হবে না। প্রয়োজনে সিরিয়ার সরকারী বাহিনীর সাহায্য নেয়া হবে। আইএসের বিরুদ্ধে স্থলযুদ্ধ করবে সরকারী সেনারা। তবে তার কথার অর্থ এখন এবং পরে কি দাঁড়াবে তা তিনি স্পষ্ট করেননি। ফাবিয়াসের মন্তব্যের ব্যাখ্যায় এক কর্মকর্তা বলেছেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফ্রান্সের দীর্ঘদিনের অবস্থানের পুনর্ব্যক্ত করে বলেছেন, সিরিয়ায় একটি ঐকমত্যের সরকার গঠিত না হওয়া পর্যন্ত আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে সিরীয় সরকারী বাহিনীকে সহায়তা করা হবে না। তিনি বলেন, একমাত্র নতুন রাজনৈতিক কাঠামো গঠিত হওয়ার পরই সহায়তা করা হবে এবং ফাবিয়াস জোর দিয়েছেন, এই পরিবর্তন জরুরী ও অপরিহার্য। রুশ কর্তৃপক্ষ অনেকদিন ধরেই বলে আসছে, আইএসের বিরুদ্ধে যে কোনো ধরনের স্থল অভিযানে সিরিয়ার সরকারী বাহিনীর অংশগ্রহণ জরুরী। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের পর ফরাসী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই ঘোষণাকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। মস্কোতে বৃহস্পতিবার ওলাঁদ ও পুতিনের মধ্যেকার বৈঠকের পর ফ্রান্স ও রাশিয়া আইএস বিষয়ে গোয়েন্দা তথ্য বিনিময়ে সম্মত হয়েছে। তবে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদের ক্ষমতায় থাকা না-থাকা নিয়ে রুশ-ফরাসী মতপার্থক্য দূর হয়নি। রাশিয়া এই সিরীয় নেতাকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে এবং পশ্চিমা ও আরব সুন্নি দেশগুলো দেশটিতে প্রায় পাঁচ বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধের জন্য আসাদকে দায়ী করে তাকে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে বলছে। পুতিনের সঙ্গে বৈঠকের পর ওলাঁদ এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আমরা যে বিষয়ে একমত হয়েছি তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং তা হচ্ছে কেবল সন্ত্রাসী ও আইএসের ওপর হামলা চালাব আমরা এবং যারা সন্ত্রাসের বিরদ্ধে লড়াই করছে তাদের বিরুদ্ধে নয়। সিরিয়ায় স্থলে আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিদ্রোহী গ্রুপগুলোর প্রতি ফ্রান্স তার সহায়তা বৃদ্ধিও করবে। জঙ্গী ইসলামী গ্রুপের বিরুদ্ধে একটি অভিন্ন ফ্রন্ট গড়ে তোলার জন্য এক কূটনৈতিক উদ্যোগ শুরু করেছেন ওলাঁদ। তিনি বলেন, আইএসের বিরুদ্ধে হামলা জোরালো হবে। এটিই হবে রুশ-ফরাসী সমন্বয়ের মূল লক্ষ্য।

সংবাদ সম্মেলনে পুতিন বলেন, সন্ত্রাসীদের নয় বরং বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকাগুলো সম্পর্কে তথ্য বিনিময় করবে রাশিয়া ও ফ্রান্স। যাতে এ এলাকাগুলো হামলার আওতামুক্ত রাখা যায়। সিরিয়ায় আইএসের বিরুদ্ধে চলমান লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও এর সহযোগীদের সঙ্গে সহযোগিতামূলক কর্মকা- বজায় রাখবে রাশিয়া। তবে বিমান ভূপাতিত করার মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটলে এ সম্পর্ক ঝুঁকির মুখে পড়বে। সিরিয়া সীমান্তে গত সোমবার তুরস্ক একটি রুশ জঙ্গীবিমান ভূপাতিত করে। পুতিন বলেছেন, এক অভিন্ন শত্রুর বিরুদ্ধে প্যারিসের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হতে মস্কো প্রস্তুত। কিন্তু তিনি মস্কোর দীর্ঘদিনের অভিমত দৃঢ়তার সঙ্গে পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে এ লড়াইয়ে আসাদ ও সিরীয় সরকার তাদের মিত্র। তিনি বলেন, আমি মনে করি, সিরীয় প্রেসিডেন্টের ভবিষ্যত নির্ভর করবে অবশ্য সিরীয় জনগণের ওপর। এ ব্যাপারে ওলাঁদের অবস্থান সম্পূর্ণ বিপরীত। ওলাঁদ জোর দিয়ে বলে আসছেন, দেশটিতে কোন ভবিষ্যত রাজনৈতিক ভূমিকা থাকবে না আসাদের।