১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঝালকাঠি আ’লীগে শিল্পমন্ত্রীর সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঝালকাঠি, ২৮ নবেম্বর ॥ ঝালকাঠির নলছিটি পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে মেয়র পদে স্থানীয় আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এতে দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে সংশয় দেখা দিয়েছে। এদিকে বিএনপি নির্বাচনে গেলে একক প্রার্থী হিসেবে বর্তমান মেয়র (সাময়িক বরখাস্ত) মজিবুর রহমান দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা বিএনপি। তবে দলীয় মনোনয়ন না থাকায় জোট- মহাজোটের সমর্থক কাউন্সিলর প্রার্থীরা বিপাকে পড়েছেন। প্রতিটি ওয়ার্ডেই কাউন্সিলর পদে একাধিক দলীয় নেতাকর্মী প্রার্থিতা ঘোষণা দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

নলছিটি পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে জানা যায়, আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা মনে করছেন দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় নলছিটি পৌরসভায় মেয়র পদে শিল্পমন্ত্রী যাদের মনোনয়ন দেবেন তারাই নির্বাচিত হবেন। এ অবস্থায় বিপাকে পড়েছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মজিবুর রহমান। বিরোধী জোটের এই প্রার্থী অভিযোগ করেছেন, দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় ভোট কারচুপির মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীকে বিজয়ী করা হবে। এক্ষেত্রে প্রশাসনের নিরপেক্ষতা নিয়েও শংকিত তিনি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তছলিম উদ্দিন চৌধুরী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. এসকেন্দার আলী খান প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এরা দুজনই শিল্পমন্ত্রী সংসদ সদস্য আমির হোসেন আমুর আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত। এই দুজনের মধ্যেই শিল্পমন্ত্রী একজনকে বেছে নিতে পারেন বলে জেলা আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে। এদিকে শিল্পমন্ত্রীর নির্দেশের অপেক্ষায় মেয়রপ্রার্থী আরও পাঁচ আওয়ামী লীগনেতা। এরা হচ্ছেন পৌরসভার সাবেক মেয়র মাছুদ খান, বর্তমান ভারপ্রাপ্ত মেয়র ফারুক হোসেন, লুৎফুল কবির প্রিন্স, ইঞ্জিনিয়ার মাসুম হোসেন ও ওয়াহেদ কবির খান। অপরদিকে কাউন্সিলর পদে পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডে প্রায় অর্ধশত ব্যক্তি প্রার্থী হচ্ছেন। এর মধ্যে শহরের প্রধান ওয়ার্ড চার নম্বর ও পাঁচ নম্বরে প্রার্থী সংখ্যাই বেশি। অপরদিকে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী চাইছেন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিবেশ। বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মজিবর রহমান বলেন, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে আমাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বিএনপি নির্বাচনে এলে আমি দলীয় মনোনয়ন পাব বলে ধারণা করছি। আর দলীয় মনোনয়ন পেলে এবং নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় থাকলে নির্বাচিতও হব।

ঝালকাঠি জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম নূপুর বলেন, নির্বাচনে দলীয় প্রতীক দেয়া হয়েছে। এতে আওয়ামী লীগ ভোট কারচুপি করে তাদের প্রার্থীদের বিজয়ী করার চেষ্টা করবে। ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে, তাহলেই কেবল বিএনপি নির্বাচনে প্রার্থী দিতে প্রস্তুত।