১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আলতাফ সভাপতি ওমর ফারুক মহাসচিব

আলতাফ সভাপতি ওমর ফারুক মহাসচিব
  • বিএফইউজে নির্বাচন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) নির্বাচনে সভাপতি আলতাফ মাহমুদ ও মহাসচিব ওমর ফারুক নির্বাচিত হয়েছেন। সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন জাফর ওয়াজেদ। এছাড়া যুগ্ম মহাসচিব অমিয় ঘটক পুলক, কোষাধ্যক্ষ আতাউর রহমান, নির্বাহী পরিষদ সদস্য হিসেবে স্বপন দাশগুপ্ত, মফিদা আকবর, শফিউদ্দিন আহমেদ বিটু ও সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা নির্বাচিত হয়েছেন। শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সকাল ৯টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলে।

সাংবাদিকদের সংগঠন বিএফইউজের দুই বছর মেয়াদকালের জন্য অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে জলিল-কামাল পরিষদ, আলতাফ মাহমুদ ও মোল্লা জালাল পরিষদ, প্যানেলের বাইরে মহাসচিব পদে ওমর ফারুক এবং ঢাকায় যুগ্ম-মহাসচিব পদে আব্দুল মজিদ ও সদস্য পদে একজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা যায়, সভাপতি আলতাফ মাহমুদ ১০৭৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুল জলিল ভুইয়া পেয়েছেন ৯৭৪ ভোট। সহ-সভাপতি পদে জাফর ওয়াজেদ পেয়েছেন ৯০০ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাসিমুন আরা হক মিনু পেয়েছেন ৪৪০ ভোট। রাজশাহী বিভাগে নির্বাচিত হয়েছেন শহীদুল আলম, তিনি ভোট পেয়েছেন ১৩৮, রাজশাহী বিভাগে প্রদীপ ভট্টাচার্য শংকর বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। খুলনা বিভাগে ১০২ ভোট পেয়ে মনোতোষ বসুসহ সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। মহাসচিব পদে ৮৬৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন ওমর ফারুক। এ পদে মোল্লা জালাল ৮২২ ভোট এবং খায়রুজ্জামান কামাল ২৩৩ ভোট পেয়েছেন।

এছাড়া যুগ্ম-মহাসচিব পদে অমিয় ঘটক পুলক ৫২৮ ভোট পেয়েছেন। এ পদে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রফিকুল ইসলাম সবুজ পেয়েছেন ৪৪৫ ভোট। আরেক প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুল মজিদ পেয়েছেন ৪১৩ ভোট। যুগ্ম মহাসচিব পদে চট্টগ্রাম বিভাগে তপন চক্রবর্তী ১৭৬ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। রাজশাহী বিভাগে ৮১ ভোট পেয়ে জিয়াল সজল ও খুলনা বিভাগে ৯৩ ভোট পেয়ে মোয়াজ্জেম হাওলাদার যুগ্ম মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন। ট্রেজারার পদে মধুসূদন ম-ল ৯৯০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী আতাউর রহমান ৭১১ ভোট পেয়েছেন। নির্বাহী সদস্য পদে সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা (৮০৯), মফিদা আকবর (৭২২), স্বপন দাশগুপ্ত (৫৯৬) এবং শফিউদ্দিন আহমেদ বিটু (৫৮২) নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন আবু তাহের। ঢাকায় ১ হাজার ৪১৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।