২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ক্যাম্পাস সংবাদ

ঢাকা কলেজের ১৭৪ বছর পূর্তি

নানা কর্মসূচী আর বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদ্যাপিত হলো ঢাকা কলেজের ১৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক তুহিন আফরোজ আলম এবং উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক মোয়াজ্জেম হোসেন মোল্লা বেলুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানমালা উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা কলেজ ক্যাম্পাস ও রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। নানান রঙের ব্যানার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গিয়েছিল কলেজের ক্যাম্পাস। শিক্ষার্থীদের পদচারণে মুখর হয়ে ওঠে ক্যাম্পাস। শিক্ষার্থীরা পারস্পরিক আলাপচারিতা ও স্মৃতিচারণায় মেতে ওঠেন। কলেজের শহীদ আ ন ম নজিব উদ্দিন খান খুররম অডিটরিয়ামে জমে ওঠে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আসর।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষার্থীদের নৈতিক মূল্যবোধের বিকাশ ঘটানোর ওপর গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের নৈতিক মূল্যবোধেরও বিকাশ ঘটাতে হবে। বর্ষপূর্তির এই অনুষ্ঠানে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, বিশ্বায়নের এ যুগে টিকে থাকতে হলে চাই বিশ্বমানের শিক্ষা। এ ক্ষেত্রে সরকারের দেয়া সুযোগ-সুবিধা কাজে লাগিয়ে নতুন প্রজন্মকে যুগোপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত করে বিশ্ব নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। ঢাকা কলেজ জাতির অনেক শ্রেষ্ঠ সন্তান উপহার দিয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, কলেজটি এখনো মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে। আগামী বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির পৌনে দুই শ’ বছর পূর্ণ হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘বিষয়টি অত্যন্ত গৌরবের। বহু আগের এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হাজার হাজার শিক্ষার্থী পড়াশোনা করেছেন। সেই তুলনায় শিক্ষক-সঙ্কট থাকলেও ফলাফলে ঢাকা কলেজ ভাল করছে বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।

১৭৪ বছর আগে ১৮৪১ সালে ঢাকা কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে এইচএসসি এবং ২১টি বিভাগে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া করছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত এই কলেজে।

ঢাকা ইমপিরিয়াল কলেজে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান

সম্প্রতি ঢাকা ইমপিরিয়াল কলেজের প্রধান ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় ২০১৫ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-১১ আসনের সংসদ সদস্য এবং তথ্য মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম রহমতুল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক আবদুল মান্নান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অবঃ) হেলাল মোর্শেদ খান, বীরবিক্রম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেনÑ কলেজ অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) জনাব মোঃ ওয়ালি উল্লাহ। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কলেজ গভর্নিং বডির সদস্য আলহাজ মোঃ ওয়ালীউল্লাহ, এফসিএ, মাজহারুল ইসলাম, শ্রী স্বদেশ রঞ্জন সাহা, এফসিএ, এফসিএস, এসএম মিজানুর রহমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি চলতি বছরে কলেজের ১৭৭ জন শিক্ষার্থীর জিপিএ-৫ প্রাপ্তি এবং ৯৯.০৮% পাসের হারে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এছাড়াও তিনি ভবিষ্যতে আরও ভাল ফলাফল অর্জনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সকলের প্রতি আহ্বান জানান। স্বাগত বক্তব্যে অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ ওয়ালি উল্লাহ্ সংক্ষিপ্ত পরিসরে কলেজের ১৯ বছরের সাফল্য তুলে ধরেন এবং কলেজের উত্তরোত্তর সাফল্যের জন্য কলেজের শিক্ষক, কৃতী শিক্ষার্থীসহ সকলকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, প্রায় সকল ছাত্রছাত্রীর জিপিএ মাধ্যমিকের চেয়ে উচ্চ মাধ্যমিকে বেড়েছে। ভবিষ্যতেও এই ধারা অব্যাহত থাকবে। অনুষ্ঠানে ঢাকা ইমপিরিয়াল কলেজ থেকে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ১৭৭ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে গোল্ড মেডেল প্রদান করা হয়। এছাড়াও স্যাটকম গ্রুপের পক্ষ থেকে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে ছবি সংবলিত ১টি করে ক্রেস্ট এবং অন্যপ্রকাশের পক্ষ থেকে একসেট করে বই উপহার দেয়া হয়। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে কলেজের সাংস্কৃতিক ক্লাব নন্দন কাননের শিল্পীবৃন্দ।

ঢাবি ও ড্যাফোডিলের মধ্যে সমঝোতা স্বাক্ষর

সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লি., ঢাবি শিক্ষার্থীদের মাঝে ল্যাপটপ প্রদান বিষয়ে সমঝোতা স্বাক্ষরিত হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্র্র্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ কামাল উদ্দিন ও ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ সবুর খান নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। এ চুক্তির ফলে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের চলতি শিক্ষাবর্ষ হতে আগামী ৫ বছর পর্যন্ত সহজ ও দীর্ঘমেয়াদী কিস্তিতে ল্যাপটপ প্রদান করবে। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক এএসএম মাকসুদ কামাল, ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেডের কোম্পানি সচিব মোঃ মনির হোসেন, উপ-মহাব্যবস্থাপক জাফর এ. পাটোয়ারী।

আইইউবিএটিতে কানাডিয়ান প্রফেসর

বাংলাদেশের নার্সিং শিক্ষার মান বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে দেশী-বিদেশী বিশেষজ্ঞ দল। এরই ধারাবাহিকতায় ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার এ্যান্ড টেকনোলজি (আইইউবিএটি) এর কলেজ অব নার্সিং পরিদর্শনে এসেছেন কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়া ইনস্টিটিউট টেকনোলজি (বিসিআইটি) এর হেলথনার্সিং ইন্সট্রাক্টর ও আইইউবিএটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ অব নার্সিংয়ের সিনিয়র এ্যাডভাইজার প্রফেসর আর এন এলেক্স বারলেন্ড। এ উপলক্ষে অভ্যর্থনার আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয় কৃর্তৃপক্ষ। প্রফেসর বারলেন্ড ১০ দিনের জন্য বাংলাদেশে আসেন এবং বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে আরও নার্স দরকার। অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ড. মোঃ আলিমউল্যা মিয়ান।

সভাপতির ভাষণে ড. মিয়ান নার্সিং শিক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, আইইউবিএটি বিশ্বমানের নার্স তৈরি করছে। এছাড়া ও স্বাগত বক্তব্য এবং প্রফেসর বারলেন্ডের পরিচিতি তুলে ধরেন কলেজ অব নাসিংয়ের কো-অরর্ডিনেটর ড. এ এস এ মাসুদ। আরও বক্তব্য রাখেন আর এন মোঃ শহিদুল আলম চৌধুরী এবং আর এন আরিফুল হক টুটুল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ডিপার্টমেন্ট এর চেয়ার, কো-অরর্ডিনেটর, ডাইরেক্টর, শিক্ষক ও শিক্ষার্থী উপস্থিত থেকে প্রফেসর বারলেন্ডকে শুভেচ্ছা জানান।

ক্যাম্পাস প্রতিবেদক