২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘চ্যালেঞ্জটা ব্যাটসম্যানদের জন্য ভাল’

  • বিপিএলে রান বেশি না হওয়া ;###;প্রসঙ্গ ও বিশ্বকাপ প্রস্তুতির ;###;বিষয়ে বললেন মাশরাফি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘হোম অব ক্রিকেট’ মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের উইকেট সবসময়ই রহস্যে ঘেরা। একই উইকেটে দিনের প্রথম ভাগে যে আচরণ থাকে তার পুরোপুরি বিপরীত চিত্র দেখা যায় দ্বিতীয় ভাগে। এবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টি২০ আসরেও সেটার প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। প্রথম চারদিন পর্যন্ত শেরেবাংলার উইকেটে রান হলেও পরবর্তী দু’দিন রান পেতে হিমশিম খেয়েছেন ব্যাটসম্যানরা। এটিকে বরং ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে ও টি২০ অধিনায়ক মাশরাফি।

আগামী বছরের শুরুতেই বাংলাদেশে এশিয়া কাপ টি২০ এবং তারপরই ভারতের মাটিতে টি২০ বিশ্বকাপ। সেজন্য দেশের ক্রিকেটারদের প্রস্তুতির অন্যতম মঞ্চ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে বিপিএল। কিন্তু চার-ছক্কার টি২০ ক্রিকেটে সেভাবে কোন দুর্দান্ত ও ঝড়ো ইনিংস খেলতে পারছেন না ব্যাটসম্যানরা। এটিকে বরং ভাল হিসেবেই দেখছেন মাশরাফি। তিনি মনে করেন রান করা কঠিন যে উইকেটে সেখানে ব্যাটসম্যানরা কিছু রান করতে পারলেই আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন। আর সেটা আগামী টি২০ এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপে কার্যকর হবে। এ বিষয়ে মাশরাফি বলেন, ‘টি২০তে যেরকম রান হয়, ১৭০-৮০’র উইকেট না। ১৪০-১৫০ করা সম্ভব। সেট হয়ে গেলে কোন ব্যাটসম্যান ভাল ছন্দে থাকলে ১৭০-১৮০ হয়ে যেতে পারে।’ এমন উইকেট হলে টি২০ এশিয়া কাপ কিংবা আগামী বছর টি২০ বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশী ব্যাটসম্যানদের প্রস্তুতিটা কতখানি ভাল হবে? এ বিষয়ে মাশরাফি বলেন, ‘এই উইকেট কিন্তু বিরামহীন। এ কারণে হয়ত উইকেট তৈরী করতে পারছে না। একদিকে ব্যাটসম্যানদের জন্যে চ্যালেঞ্জ হচ্ছে এটাও কিন্তু খারাপ না। এখান থেকে ব্যাটসম্যানরা যদি রান করতে পারে তাহলে কিন্তু তাদের আত্মবিশ্বাস ভাল থাকবে। ভাল করলে বোলারদের ভাল লাগবে। বাংলাদেশ দল যখন বাইরে খেলতে যাবে তখন যদি এরকম উইকেট পায় তাহলে কিন্তু কিছুটা হলেও অভিজ্ঞতা থাকবে যে কিভাবে খেলতে হবে।’

মাশরাফি মনেপ্রাণে চাইছেন যাতে করে জাতীয় দলে খেলা ক্রিকেটাররা রান পায়। কিন্তু এখন পর্যন্ত চলমান বিপিএলে অনেকেই ব্যাট হাতে ব্যর্থ। এ বিষয়ে মাশরাফি বলেন, ‘এটা এত চিন্তার ব্যাপার না। আমার মনে হয় ওরা শীঘ্রই ঘুরে দাঁড়াবে। সবাই খুব ফর্মে ছিল যদি শেষ টি২০ বাদ দেই। সাকিব তো বিশ্রামহীন। মুশফিক রানে আছে। সৌম্য, ইমরুল, লিটন, সাব্বির রান পায়নি। আমার মনে হয় না এটা এত দুঃশ্চিন্তার। আশাকরি ওরা ভালভাবেই ফিরে আসবে। এশিয়া কাপ আমাদের মাটিতে। যদি বিশ্বকাপের কথা ফোকাস করেন, আইপিএলে কিন্তু দুই শ’রও বেশি রান হতে দেখা যায়। ভারতের মাটিতে বিশ্বকাপের মত টুর্নামেন্টে স্পোর্টিং উইকেট থাকবে। রান হবে প্রচুর। আমাদের অনুশীলন এখন চলছে। যতটুকু মানিয়ে নেয়া যায়।’