২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তবু সবার ওপরে মুশফিক

  • বিপিএলে ব্যাট হাতে ব্যর্থ জাতীয় দলের সৌম্য, সাব্বির, ইমরুল ও নাসির

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দলের অবস্থা তেমন সুবিধার নয়। এবার সিলেট সুপার স্টারসের আইকন ও অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম অবশ্য ব্যাট হাতে রান করে যাচ্ছেন। কিন্তু দলগতভাবে ঝলসে উঠতে না পারায় সুপার স্টারস প্রথম পর্বের ৪ ম্যাচেই হেরে গেছে। চলতি আসরে এখন পর্যন্ত মুশফিক ব্যাট হাতে ৪ ম্যাচে করেছেন ৪৯.০০ গড়ে ৯৮ রান। সেদিক থেকে চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টি২০ আসরে আট নম্বরে তিনি। তবে তিন আসর মিলিয়ে এখন সর্বাধিক রানের মালিক হয়ে গেছেন তিনি। ছাড়িয়ে গেছেন অস্ট্রেলিয়ান তারকা ব্র্যাড হজকে। তিন আসর মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ২৮ ম্যাচ খেলে মুশফিকের রান ৭৭২। আর দুইয়ে নেমে যাওয়া হজের রান ২৩ ম্যাচে ৭৫৬। চলতি আসরেও মুশফিকের ব্যাটে রান থাকলেও জাতীয় দলের তারকা ব্যাটসম্যানরা হয়েছেন ব্যর্থ। সে তালিকায় আছেন ওপেনার সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস এবং দুই অলরাউন্ডার সাব্বির রহমান রুম্মান ও নাসির হোসেন। ব্যাট হাতে জাতীয় দলের এ চার ক্রিকেটারই একেবারে নিষ্প্রভ। জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি সৌম্য। জাতীয় দলে ঢোকার পর দারুণ আলো ছড়িয়েছিলেন এ ওপেনার। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে খেলা সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজেও দারুণ খেলেছেন। তবে ২২ বছর বয়সী সৌম্য সম্প্রতি বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরেও তেমন সুবিধা করতে পারেননি। এবার বিপিএল দিয়ে আবার নিজেকে ফিরে পাওয়ার লড়াই ছিল সৌম্যের। কিন্তু সে লড়াইয়েও তিনি ব্যর্থ। অথচ ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজ’ পদ্ধতিতে প্রথম সুযোগেই তাকে দলে ভিড়িয়েছে রংপুর রাইডার্স। ৫ ম্যাচ খেলে উল্লেখযোগ্য কোন ইনিংস খেলতে পারেননি সৌম্য। ১৩.৪০ গড়ে করেছেন মাত্র ৬৭ রান। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ইনিংস মাত্র ২০ রানের। সোমবার বন্দরনগরী চট্টগ্রামে বিপিএলের দ্বিতীয় পর্ব। এবার ব্যাট হাতে নিজেকে ফিরে পাওয়ার লড়াই এ ওপেনারের। জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজে সুযোগ করে নেয়া ওপেনার ইমরুল কায়েস দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছিলেন। তিনিও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের জন্য বিশেষ কিছু করতে পারেননি। ৪ ম্যাচে মাত্র ১২.৩৩ গড়ে করতে পেরেছেন ৩৭ রান। সর্বোচ্চ অপরাজিত ২৪ রানের ইনিংস খেলেছেন ঢাকা পর্বের শেষ ম্যাচে ডায়নামাইটসের বিরুদ্ধে। এবার সেটা ধরে রাখার পালা তার চট্টগ্রাম পর্বে।

একইভাবে ব্যর্থ হয়েছেন জাতীয় দলের দুই অপরিহার্য ক্রিকেটার সাব্বির ও নাসির। বরিশাল বুলসের হয়ে খেলা সাব্বির ৩ ম্যাচে ১২.০০ গড়ে করেছেন মাত্র ৩৬ রান, সর্বোচ্চ ১৫! জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে অবশ্য ৩৩ ও ৫৭ রানের দু’টি ইনিংস খেলেছিলেন ওয়ানডেতে। তবে মারকুটে ব্যাটসম্যানের তকমা থাকলেও দুই টি২০ ম্যাচে করতে পেরেছিলেন ১ ও ১৮! ওই ব্যর্থতা এবার বিপিএলেও কাটাতে পারেননি তিনি। জাতীয় দলে ফেরার পর নিজের অবস্থান টিকিয়ে রাখার লড়াইয়ে তেমন সুবিধা করতে পারেননি অলরাউন্ডার নাসির। চলতি বিপিএলেও ব্যাট হাতে তেমন সুবিধা করতে পারছেন না ঢাকা ডায়নামাইটসের আইকন। ৪ ম্যাচে ১৮.৩৩ গড়ে ৫৫ রান করেছেন নাসির। তবে শেষ ম্যাচে ৩৩ রানের একটি ভাল ইনিংস উপহার দিয়েছেন। সবাইকে ছাপিয়ে মুশফিক এখন আলোচনায়। বিপিএলের ইতিহাসে সর্বাধিক রানের মালিক হয়ে গেছেন তিনি। সুপার স্টারসের অধিনায়ক ৪ ম্যাচে করেছেন ৫০*, ০, ২৫* ও ২৩ রান। ধারাবাহিকতার মধ্যে থাকা মুশফিক তিন আসর মিলিয়ে ৪০.৬৩ গড়ে ৭৭২ রান করে এখন সবার ওপরে। আছে ৫টি অর্ধশতক।