২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিভাগীয় শহরেও ব্যাংকিং মেলা আয়োজনের পরামর্শ গবর্নরের

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে প্রতিবছর ব্যাংকিং মেলা আয়োজনের পাশাপাশি বিভাগীয় শহরেও তা আয়োজনের আগ্রহের কথা জানান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান। শনিবার সন্ধ্যায় পাঁচ দিনব্যাপী ব্যাংক মেলার শেষদিনের সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আতিউর রহমান বলেন, আমি আশা করব এখন থেকে এই মেলা প্রতিবছর এই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে। একই সঙ্গে আমি গবর্নর থাকাকালীন বিভাগীয় শহরে যাতে অন্তত একবার ব্যাংকিং মেলা অনুষ্ঠিত হয়। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে এজেন্ট ব্যাংকিং আরও প্রসারের বিষয়ে তিনি বলেন, গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সবার ব্যাংক করা সম্ভব নয়। তাই সেখানে এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সেবা বাড়ানোর জন্য ব্যাংকগুলোর প্রতি আহ্বান জানান তিনি। এজেন্টগুলো থেকে গ্রামের গরিব মানুষ স্বল্পসুদে ঋণ নিয়ে আর্থিক সচ্ছলতা আনতে পারবে বলেও মনে করেন তিনি।

ওয়ালটন এবং ইউনিলিভার কোম্পানির মতো সারা দেশে যে সমন্ত এজেন্ট রয়েছে তাদের কাছে এজেন্ট ব্যাংকিং দিয়ে দিতে বিভিন্ন ব্যাংকের প্রতি আহ্বান জানান গবর্নর। আতিউর রহমান বলেন, মেলা শুরুর আগে অনেকের মধ্যে সংশয়-উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছিল। আজ বলতে দ্বিধা নেই, সকল প্রশ্ন ও উৎকণ্ঠার অবসান ঘটিয়ে অত্যন্ত সফলভাবেই মেলাটি শেষ হতে যাচ্ছে। যথেষ্ট সাড়া পেয়েছি আমরা।

এ সময় তিনি আগামীতে মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রতি আহ্বান জানান, আগামীতে মেলায় নতুন নতুন পণ্য নিয়ে হাজির হবেন। মেলা উপলক্ষে বিভিন্ন অফার নিয়ে আসবেন। যাতে এখান থেকে গ্রাহক ঋণ নিলে একটু সুবিধা পায় সেটা খেয়াল রাখবেন। প্রত্যেক ব্যাংকে অভিযোগ বক্স রাখারও আহ্বান জানান গবর্নর।

সমাপনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গবর্নর আবু হেনা মুহাঃ রাজী হাসানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক সফল খাদ্যমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। বক্তব্য রাখেন মেলার প্রধান সমন্বয়কারী বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. বিরূপাক্ষ পাল, বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান, পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীরা।