২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সুন্দরগঞ্জে চরাঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগ ॥ বাঁশের সাঁকোতে যাতায়াত

সুন্দরগঞ্জে চরাঞ্চলের মানুষের দুর্ভোগ ॥ বাঁশের সাঁকোতে যাতায়াত

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা ॥ সুন্দরগঞ্জ পৌরসভার রামডাকুয়া ব্রীজ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় চরাঞ্চলের মানুষের যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তিস্তার চরাঞ্চলের কয়েক গ্রামের মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা বাঁশের সাঁকো। অথচ নতুন ব্রীজ নির্মাণের কোন উদ্যোগ নেই।

উল্লেখ্য, গত ২০১৩ সালে জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি কর্ণেল ডাঃ আব্দুল কাদের খান নিজ তহবিল থেকে তিস্তার শাখা নদীর উপরে অপরিকল্পিত ভাবে রামডাকুয়া ব্রীজ নির্মাণ করেন। ব্রীজটি নির্মাণের পর থেকেই ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়ে। এরপরেও সাধারণ জনগণ ব্রীজের উপর দিয়ে চলাচল করে আসছিল। বন্যার স্রোতে ব্রীজটি ধসে এবং ভেসে যায়, নৌকা যোগে চলাচল করতে থাকে চরাঞ্চলের মানুষ। বর্তমানে তিস্তার পানি কমে যাওয়ায় নৌকায় চলাচলও বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ওই স্থানে বেলকা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজির নিজ উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে পারাপারের জন্য প্রতিটি মানুষের নিকট থেকে পাঁচ টাকা হতে দশ টাকা পর্যন্ত টোল আদায় করে আসছেন। প্রতিদিন ওই বাঁশের সাঁকোর উপর দিয়ে বেলকা, হরিপুর, তারাপুর ইউনিয়নের দশ গ্রামের কমপক্ষে পাঁচ হাজার লোকজন উপজেলা শহরে যাওয়া আসা করে আসছেন। বর্তমানে বাঁশের সাঁকোর উপর দিয়ে যানবাহন বন্ধ হওয়ায় মালামাল পরিবহন বন্ধ হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন থেকে চরাঞ্চলের রিক্সা ও ভ্যান চালকগণ উপজেলা শহরে গ্যারেজে ভ্যান ও রিক্সা রেখে যাচ্ছেন। সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার হাবিবুল আলম জানান, ব্রীজটি নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরে চাহিদা পাঠানো হয়েছে।