২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পণ্যে পাটজাত মোড়ক নিশ্চিত করতে সোমবার থেকে অভিযান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ কারাদণ্ড, অর্থদণ্ড, ব্যাংক ঋণ সুবিধা বন্ধ, লাইসেন্স বাতিল, আইআরসি বা ইআরসি বাতিলের বিধান রেখে ‘পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০ বাস্তবায়নে সাঁড়াশি অভিযান চালু হচ্ছে। আগামী ৩০ নভেম্বর থেকে ধান, চাল, গম, ভুট্টা, সার ও চিনি পরিবহনে দেশের বিভাগ, জেলা, উপজেলা, থানা পর্যায়ে এ অভিযান পরিচালিত হবে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম।

রবিবার সকালে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও বিজেএমসির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) হোসেন খালেদ উপস্থিত ছিলেন। পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন বাস্তবায়নে দেশব্যাপী সাঁড়াশি অভিযান বিষয়ক এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মির্জা আজম বলেন, পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন, ২০১০ এর ধারা ১৪ অনুযায়ী পাটের মোড়ক ব্যবহার না করলে অনূর্ধ্ব এক বছর কারাদণ্ড বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে। এ অপরাধ পুনঃসংগঠিত হলে সর্বোচ্চ দণ্ডের দ্বিগুণ দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

এ ছাড়া ছয়টি পণ্যে পাটের মোড়ক ব্যবহার না করলে ব্যাংকঋণ সুবিধা প্রদান করা হবে না। ইতোমধ্যে তফসিলি ব্যাংকগুলো এ বিষয়ে নির্দেশনা জারি করেছে। একইসঙ্গে চাতাল মিল মালিকগণ পাটের ব্যাগ ব্যবহার না করলে খাদ্য মন্ত্রণালয় তাদের লাইসেন্স বাতিল করবে। পাশাপাশি আমদানি ও রফতানিকালে পাটের ব্যাগ ব্যবহার না করলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আইআরসি বা ইআরসি বাতিল করবে।

তিনি বলেন, সড়ক, মহাসড়ক, চাল উৎপাদকারী এলাকাসহ ঢাকার প্রবেশমুখ ও দেশের স্বরাষ্ট্র, পরিবেশ ও বন, নৌ পরিবহন, সড়ক পরিবহন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়, পাট অধিদফতর, পরিবেশ অধিদফতর, স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ, বিআইডাব্লিউটিএ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও র‌্যাবের সহায়তায় এ সাঁড়াশি অভিযান পরিচালিত হবে। প্রাথমিক অবস্থায় আমরা বাস, ট্রাক, পিকআপে পরিবহণযোগ্য ৫০ কেজির প্লাস্টিক বা পলিথিনের বস্তা ব্যবহার রোধে অভিযান পরিচালনা করব। পরবর্তী সময়ে আমরা এক থেকে পাঁচ বা দশ থেকে বিশ কেজির প্লাস্টিক বা পলিথিনের বস্তা ব্যবহার রোধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

তিনি আরও বলেন, এ অভিযান মনিটরিংয়ের জন্য বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিবদের সমন্বয়ে ১০টি পৃথক মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ আইন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আগামী দুই মাসে যে পরিমাণ পাটের বস্তার প্রয়োজন হবে তা ইতোমধ্যে মজুদ রয়েছে। এসব সরবরাহ করবে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান বিজেএমসি।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া