১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সর্বত্র ভোটের আলাপ

  • সিলেটের জকিগঞ্জ

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ হাট-বাজার হোটেল-রেস্তরাঁ সবখানে এখন চলছে ভোটের আলাপ। প্রার্থী নিয়ে ভোটারদের হিসাবনিকাশ। সমর্থকরা নিজেদের পছন্দের প্রার্থীর কথা তুলে ধরে অপরকে দলে ভেড়ানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন। এবার দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হবে বলে প্রার্থীরা আগেভাগেই নির্বাচনী মাঠে নেমে দলীয় মনোনয়ন পেলে তারা প্রার্থী হবেন বলে ভোটারদের সমর্থন আদায়ের চেষ্টা চালাচ্ছেন।

মেয়র প্রার্থিতা নিয়ে বিপাকে আওয়ামী লীগ। জাপা, খেলাফত মজলিস, আনজুমানে আল ইসলাহর প্রার্থী প্রায় নিশ্চিত। বিএনপিতে প্রার্থিতা নিয়ে রয়েছে অনিশ্চয়তা। ভোটের হিসাবনিকাশ পাল্টে দিয়েছে দলীয় প্রতীকে স্থানীয় নির্বাচনের অধ্যাদেশ জারির পর। দলীয় প্রতীকে নির্বাচনী লড়াইকে সৌভাগ্য মনে করে আলোচনায় আসতে আওয়ামী লীগের হাফ ডজনের চাইতে বেশি নেতা তৎপর। পৌর এলাকায় সর্বত্র বইছে নির্বাচনী হাওয়া। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মেয়র প্রার্থীদের বিলবোর্ডে ছেয়ে গেছে পৌরশহর। তফসিল ঘোষণার পর সময় কম থাকায় প্রার্থীরা আগেভাগেই প্রচার কাজ শুরু করেছেন। দিন রাত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে চষে বেড়াচ্ছেন। অতীতের কাজকর্ম তুলে ধরে ব্যক্তিগত ইমেজ তৈরির চেষ্টা করছেন। দলীয় প্রার্থী বাছাই নিয়ে শুরু হয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে তোড়জোড়। দফায় দফায় বৈঠক হলেও দলীয় প্রার্থিতা নির্বাচন নিয়ে অনিশ্চয়তা কাটেনি। প্রার্থীরা জেলা পর্যায়ে তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে আওয়ামী লীগে দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে ভুল হলে বিদ্রোহী প্রার্থী ভোটের মাঠে থাকতে পারেন। এবারের নির্বাচনে মেয়রপদে দেখা যাচ্ছে বেশির ভাগ নতুন মুখ। নির্বাচনে দলীয় প্রতীক থাকায় নতুন আমেজে জমে উঠেছে সীমান্তবর্তী জকিগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন। আলোচনায় রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্মআহ্বায়ক ফারুক আহমদ, সাবেক যুগ্মআহ্বায়ক নাসিম আহমদ, সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল আহাদ, পৌর আওয়ামী লীগ সদস্য আব্দুর রহমান লুকু। বিএনপি নির্বাচনে এলে প্রার্থী হবে বলে জানিয়েছেন সাবেক পৌর বিএনপির সভাপতি বদরুল হক বাদল। প্রার্থী নির্ধারণের জটিলতায় রয়েছে আওয়ামী লীগ। কার ভাগ্যে জুটবে নৌকা প্রতীক। পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুসলেহ উদ্দিন সুহেল জানান, প্রার্থীদের অতীতের রাজনৈতিক কর্মকা- বিবেচনা করে পৌর আওয়ামী লীগ মেয়রপ্রার্থী নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে বিজয় নিশ্চিত করা হবে।

নির্বাচন কমিশনের অনিবন্ধিত দল আনজুমানে আল ইসলাহ মেয়রপদে লড়াই করবে বলে জানা গেছে। পৌর আল ইসলাহ সভাপতি ও ঈদে মিলাদুন্নবী (সা) উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী হিফজুর রহমান আল ইসলাহর প্রার্থী হবেন এটা প্রায় নিশ্চিত। এ লক্ষ্যে তার দল ব্যাপক নির্বাচনী প্রস্তুতি নিচ্ছে। দলটি অনিবন্ধিত হলেও আব্দুল লতিফ চৌধুরী ফুলতলীর হাতে গড়া সংগঠন হিসেবে পৌর এলাকায় একটি ভোটব্যাংক রয়েছে।

খেলাফত মজলিস থেকে সোনার বাংলা সমবায় সমিতির এমডি গত নির্বাচনের মেয়রপ্রার্থী জাফরুল ইসলামকে দলীয় প্রার্থী করা হচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে।