২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্বাচনী আলোচনায় মুখর সিরাজগঞ্জ

বাবু ইসলাম, সিরাজগঞ্জ ॥ নির্বাচনী তপসিল ঘোষণার পর সিরাজগঞ্জ সদর পৌরসভাসহ ৬ পৌরসভার সাম্ভাব্য দলীয় মেয়র প্রার্থীরা প্রচারণার পাশাপাশি দলীয় মনোনয়ন পেতে তৎপর হয়ে উঠেছেন। প্রত্যেক প্রার্থীই এখন গণসংযোগে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে সিরাজগঞ্জ জেলার ৬টি পৌর নির্বাচনী এলাকার নির্বাচনী মাঠ এখন সরগরম। দোকান পাট, হাট-বাজার ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এখন নির্বাচন কেন্দ্রিক আলোচনায় মুখর। আলোচনা শুরু হয়েছে কোন দল থেকে কে প্রার্থী হচ্ছেন। নতুন কোন চমক আসছে কিনা !

সিরাজগঞ্জ পৌর নির্বাচনে যে সকল প্রার্থীগণ প্রচারণা চালাচ্ছেন তারা হলেনÑ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট কেএম হোসেন আলী হাসান, সিরাজগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসহাক আলী, আওয়ামী লীগ নেতা শিল্পপতি সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা এবং বর্তমান ভারপ্রাপ্ত মেয়র সেলিম আহম্মেদ।

অপরদিকে, বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বরখাস্তকৃত মেয়র এ্যাডভোকেট মোকাদ্দেস আলী, জেলা বিএনপির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু ও সাবেক পৌর চেয়ারম্যান টিআর এম নুরই আলম হেলাল।

জেলার সর্ব উত্তরে অবস্থিত কাজিপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদ প্রত্যাশী হিসেবে আছেন সাবেক মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গোলাম মোস্তফা তালুকদার মধু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল হান্নান, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও গান্ধাইল আলী আহম্মেদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান বিএসসি, নেতা নিজাম উদ্দিন। এছাড়া পৌর বিএনপির সভাপতির পদ থেকে সদ্য পদত্যাগী নেতা ও বর্তমান মেয়র আবদুস সালাম এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়বেন। বেলকুচি পৌরসভার জন্য সাবেক মন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল লতিফ বিশ্বাসের স্ত্রী ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আশানুর বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান রতন, সাবেক যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন প্রামাণিক, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্তমান মেয়র মফিজ উদ্দিন লাল খাঁ, পৌর কমিটির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মীর সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক ও উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি আরিফুল ইসলাম সোহেল পোস্টার ও ব্যানারে আসন্ন নির্বাচনে নিজ নিজ দল থেকে মেয়র পদে আগাম প্রার্থিতার ঘোষণা দিয়েছেন।

রায়গঞ্জ পৌরসভা থেকে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান উপজেলা আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধাবিষয়ক সম্পাদক আফসারুল আলম খোকন, যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল পাঠান, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মাহমুদ, ধানগড়ার সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও বিএনপি থেকে সম্প্রতি আওয়ামী লীগে যোগ দেয়া মোশারফ হোসেন সরকার, জামায়াত সমর্থিত বর্তমান মেয়র মোশারফ হোসেন আকন্দ, উপজেলা বিএনপির সদস্য ও সাবেক পৌর প্রশাসক নুর সাঈদ সরকার এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুল ইসলাম সরকার। উল্লাপাড়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আহসান আলী সরকার ও সাধারণ সম্পাদক এসএম নজরুল ইসলামের পাশাপাশি মেয়র পদপ্রার্থী হিসেবে প্রচারণায় আছেন উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিরলি ইসলাম কবিতা, উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ফয়সাল কাদের রুমি, উপজেলা জাসদের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আল মাহমুদ মাসুম, উল্লাপাড়া বাজার-বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদুজ্জামান কাঁকন ও প্যানেল মেয়র আমিরুল ইসলাম আরজু। কবিতা ও আরজু দলীয় নির্দেশনা অনুযায়ী প্রার্থিতার সিদ্ধান্ত নেবেন। বিএনপি থেকে উপজেলা কমিটির সভাপতি ও বর্তমান মেয়র বেলাল হোসেন ও বিদ্রোহী নেতা আজাদ রহমান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলে শোনা গেছে। তবে মামলা ও গ্রেফতারের ভয়ে বিএনপির এই দুই নেতা দীর্ঘদিন ধরে আত্মগোপনে আছেন। শাহজাদপুরে আলোচিত প্রার্থীরা হলেনÑ জেলা কৃষক লীগের সদস্য ও সাবেক মেয়র হালিমুল হক মিরু, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ভিপি রহিম এবং বর্তমান মেয়র ও উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি- পরিবহন নেতা নজরুল ইসলাম ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন।