২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পূর্বাঞ্চল সম্পাদক লিয়াকত আলীর ইন্তেকাল

পূর্বাঞ্চল সম্পাদক লিয়াকত আলীর  ইন্তেকাল

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ দৈনিক পূর্বাঞ্চল সম্পাদক আলহাজ লিয়াকত আলী আর আর নেই। খুলনা বিভাগীয় প্রেসক্লাব ফেডারেশনের সভাপতি, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) পরিচালক শনিবার রাত ১২টায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি...রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি স্ত্রী ও এক ছেলেসহ বহু আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন। আলহাজ লিয়াকত আলী ছাত্রজীবন থেকেই সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত হন। আমৃত্য তিনি এ পেশার সঙ্গে একনিষ্ঠভাবে জড়িত ছিলেন।

তার পারিবারিক সূত্র জানায়, বিগত কয়েক দিন ধরে আলহাজ লিয়াকত আলী জ্বরে ভুগছিলেন। এছাড়া প্রায় ছয় মাস ধরে তার সহধর্মিণী ও পূর্বাঞ্চলের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক বেগম ফেরদৌসী আলীর চিকিৎসাজনিত কাজে সময় পার করছিলেন। দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত বেগম ফেরদৌসী আলীর চিকিৎসাজনিত কারণে আলহাজ লিয়াকত আলী ছিলেন মানসিক চাপে বিপর্যস্ত। শনিবার রাতে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হলে দ্রুত তাকে হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে নেয়া হয়। রাত ১২টায় সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে সাংবাদিক সমাজসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার লোকদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে। সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, পেশাজীবী, ব্যবসায়ীসহ সর্বস্তরের মানুষ শনিবার গভীর রাত থেকেই নগরীর ইকবালনগর মসজিদ এলাকার পূর্বাঞ্চল ভবনে ছুটে যান। রবিবার সকালে প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তা, র‌্যাব ও পুলিশের পদস্থ কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন স্তরের মানুষ শোক ও সমবেদনা জানাতে তার বাসভবনে যান। বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে তার মৃতদেহ বহনকারী গাড়ি বাসভবনের সামনে পৌঁছলে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। আত্মীয়স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। কেউ কেউ কাঁদতে কাঁদতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরে মরদেহ খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে নিয়ে রাখা হয়।

দৈনিক পূর্বাঞ্চল পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আমেরিকায় অবস্থানরত মরহুম লিয়াকত আলীর পুত্র সনি মোহাম্মদ আলীসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজনকে জানানো হলে তারা দেশের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। আজ সোমবার বেলা ১১টায় তাদের ঢাকায় পৌঁছার কথা রয়েছে। ঢাকা থেকে তারা আজই খুলনা পৌঁছবেন। মঙ্গলবার সকাল ৯টায় মরহুমের মরদেহ রাখা হবে প্রেসক্লাব চত্বরে। সেখানে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের পর বেলা ১১টায় তার লাশ নেয়া হবে শহীদ হাদিস পার্কে। সেখানে জানাজা শেষে নগরীর বসুপাড়া কবরস্থানে লাশ দাফন করা হবে। তার মৃত্যুতে পূর্বাঞ্চল সাত দিনের শোক কর্মসূচী পালন করছে। ওই কর্মসূচী অনুযায়ী রবিবার পত্রিকার সকল বিভাগ বন্ধ রাখা হয়। যে কারণে সোমবার পূর্বাঞ্চল প্রকাশিত হবে না।

আলহাজ লিয়াকত আলী ছাত্রজীবন থেকেই সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত হন। তার মালিকানা ও ব্যবস্থাপনায় দৈনিক পূর্বাঞ্চল ছাড়াও ইংরেজী পত্রিকা ডেইলি ট্রিবিউন নিয়মিত প্রকাশিত হয়ে আসছে। বহুল প্রচারিত পূর্বাঞ্চল সম্পাদক আলহাজ লিয়াকত আলী ষাটের দশকে তুখোড় ছাত্রনেতা ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন। বৃহত্তর খুলনার উন্নয়নের আন্দোলনে তিনি নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি সামাজিক বিভিন্ন কর্মকা-ের সঙ্গেও জড়িত ছিলেন।

পূর্বাঞ্চল সম্পাদক লিয়াকত আলীর মৃত্যুতে খুলনা জেলা প্রশাসক মোঃ মোস্তফা কামাল, কেএমপি কমিশনার নিবাস চন্দ্র মাঝি, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান, কুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলমগীর, খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) আনিছুর রহমান বিশ্বাস, খুলনা প্রেসক্লাব, খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন, এমইউজে, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর শোক ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ও খুলনা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পূর্বাঞ্চলের সম্পাদক লিয়াকত আলীর ইন্তেকালে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। রবিবার এক শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, লিয়াকত আলী সাংবাদিকদের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিলেন এবং সাংবাদিকতা পেশায় অসামান্য অবদান রাখা ছাড়াও বিভিন্ন জনকল্যাণমুখী কাজে নিজেকে নিবেদিত রেখেছিলেন। তিনি বলেন, তার ইন্তেকালে খুলনাবাসী তাদের প্রিয় ব্যক্তিকে হারিয়েছে, দেশ হারিয়েছে বিশিষ্ট সাংবাদিক ও সমাজকর্মীকে। শেখ হাসিনা মরহুমের আত্মার শান্তি ও মুক্তি কামনা করেন এবং মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।