২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নাচোল-রহনপুরে গণসংযোগে ব্যস্ত প্রার্থীরা

ডি.এম তালেবুন নবী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ বরেন্দ্র অঞ্চলের দুই পৌরসভা রহনপুর ও ইলামিত্রের নাচোল। একেবারে আদি লালমাটির বরেন্দ্র ভূমি ও তেভাগা আন্দোলনের সূতিকাগার ইলামিত্রের নাচোল পৌরসভা ছোট হলেও এখানকার সংখ্যাগরিষ্ঠ আদিবাসী সাঁওতাল, রাজবংশী ও ওঁরাও সম্প্রদারের ভোটারদের সংখ্যাই বেশি। ভোটারের সংখ্যা সাড়ে তের হাজার তফসিল ঘোষণার পর সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা ঘরে বসে নেই। নাচোল পৌরসভা গঠনের পর আজ পর্যন্ত কোন আওয়ামী লীগ সমর্থক প্রার্থী মেয়র বা চেয়ারম্যান হতে পারেনি। তাই এবার শপথ নিয়ে সম্ভাব্য আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা মাঠে নেমেছে। আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে আনারুল ইসলাম ঝাইটনের নাম ঘোষণা করলেও সম্ভাব্য তালিকায় আরও রয়েছে আব্দুর রশিদ ঝালু ও যুবলীগ নেতা রয়েল বিশ্বাস শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগ একক প্রার্থী বেছে নিতে পারবে এমনটাই আশা করছে দলের উচ্চ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। এখানকার আওয়ামী প্রার্থীদের মধ্যে রয়েল বিশ্বাস সব দিক দিয়ে এগিয়ে রয়েছে বলে জানা গেছে। এখানে বিএনপির প্রার্থীরা কেন্দ্রের মনোনয়ন পাক না পাক নির্বাচন করবে বলে জানা গেছে। তবে নাচোল পৌরসভার সাবেক প্রশাসক কামরুজ্জামান ও নূর কামাল এগিয়ে রয়েছেন মনোনয়ন দৌড়ে। এছাড়াও অপর বিএনপি প্রার্থী আব্দুল আল মাসুদ জনসংযোগের মাধ্যমে প্রচার কারছেন, যে কোনমূল্যে নির্বাচন করবেন। জামায়াত প্রার্থী হিসাবে রফিকুল ইসলামের নাম শোনা যাচ্ছে। তিনি বর্তমানে নাশকতার মামলায় কারাগারে রয়েছেন। জাতীয় পাটি এরশাদের তৌহিদুল ইসলাম শাহীনের নাম শোনা যাচ্ছে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী তালিকায়। এছাড়াও ৯টি ওয়ার্ডে ও সংরক্ষিত আসনে সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছে শতাধিক। অপর পৌরসভা গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর। ভোটারের সংখ্যা প্রায় ২৪ হাজার। এখানে প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের বর্তমান মেয়র চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের (নাচোল, গোমস্তাপুর, ভোলাহাট) আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফার ভাই গোলাম রাব্বানী ও সাবেক সাংসদ পুত্র জালাল উদ্দীন। শতভাগ আশ্বস্ত হয়ে বলেছেন তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নৌকা মার্কা নিয়ে ভোট করবেন। এখানে আওয়ামী লীগের বিভাজনে প্রতিপক্ষ খুবই দুর্বল। তাই কেউ এখন পর্যন্ত বর্তমান মেয়র গোলাম রাব্বানীর বিরুদ্ধে নির্বাচন করার ঘোষণা দিতে পারেনি। এখানে বিএনপির কোন্দল তীব্র, তার পরেও বিএনপি থেকে সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন এনায়েত করিম তৌকি, এ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সেন্টু ও আসাদুজ্জামান। জামায়াত থেকে মিজানুর রহমানের নাম ঘোষণা এলেও তিনি নাশকতার মামলায় কারাগারে রয়েছেন। সব মিলিয়ে রহনপুর পৌরসভা এবারও আওয়ামী লীগের দখলে থাকবে বলে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটারের অভিমত। এখানে দু’জন মেয়র পদে ও কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা পদে ২১ জন মনোনয়ন তুলেছে শনিবার পর্যন্ত। সকলেই আওয়ামী সমর্থক।