২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে নানার বাসা খুঁজতে এসে স্কুলছাত্রী ধর্ষিত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীতে নানার বাসা খুঁজতে এসে এক ছাত্রী পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। পরে সোমবার সন্ধ্যায় পুলিশ বনানী এলাকা থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, তার শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। এজন্য তাকে অস্ত্রোপচার করা হচ্ছে। অবস্থা আশঙ্কাজনক।

জানা গেছে, ধর্ষিতা ওই তরুণীর গ্রামের বাড়ি ফেনী সদরের শিলুয়া এলাকায়। সে এ বছর জেএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। বনানী থানার উপ-পরিদর্শক কামাল জানান, রবিবার রাতে চট্টগ্রাম থেকে ওই সুন্দরী তরুণী (১৪) তার মা ও বোনের সঙ্গে বনানী এলাকায় আসে। এরপর তারা ওই এলাকায় তার নানার বাড়ি খুঁজতে গিয়ে পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়। এসআই কামাল জানান, সোমবার বিকেলে ক্যান্টনমেন্ট থানার বনানী ইসিবি চত্বর এলাকায় ২টি ছেলের সঙ্গে মেয়েটি ও তার মা এবং বোন বসে ছিলেন। এ সময় তাদের টহল পুলিশের সন্দেহ হলে তারা এগিয়ে যায়। তখন ওই দুই ছেলে পালিয়ে যায়। পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, মেয়েটি নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এরপর মেয়েটির মা ও বোনকে ক্যান্টনমেন্ট থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এসআই কামাল জানান, পরে নির্যাতিত মেয়েটিকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে ভর্তি করেন। তিনি জানান, ঘটনাটি ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় ঘটেছে। ক্যান্টনমেন্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, মেয়েটি বনানীর প্রধান সড়কে গাড়ি থেকে নামে। সঙ্গে তার মা ও বোন ছিল। বনানী এলাকায় মেয়েটির নানার বাসা খোঁজ করতে এসেছিল। এ সময় সেখানে দায়িত্বরত টহল পুলিশ তরুণীটিকে অসংলগ্ন অবস্থায় দেখেন। পরে তাকে উদ্ধারের পর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে ভর্তি করা হয়েছে। মেয়েটি সুস্থ হলে তার জবানবন্দীর ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে ওসি জানান। তবে ঢামেক হাসপাতাল সূত্র জানায়, মেয়েটি পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তার শরীর থেকে রক্ত ঝরছে। পরনের কাপড় রক্তে ভিজে গেছে। এ রিপোর্ট লেখার সময় মেয়েটিকে অপারেশন থিয়েটারে নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।