২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘সীমান্ত দেয়াল ভাঙতে হবে’

‘সীমান্ত দেয়াল ভাঙতে হবে’

অনলাইন রির্পোটার ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমাদের সংশয় আর অবিশ্বাস ভাঙতে হবে। সীমান্ত দেয়ালও ভেঙে দিতে হবে। ইউরোপ যদি সীমান্তের সব বাধা অতিক্রম করে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এগিয়ে যেতে পারে, আমরা কেন পারব না? আমাদের মধ্যে তো সাংস্কৃতিক মেলবন্ধন রয়েছে।’

আজ মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউর জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ পাশে মৈত্রী র‌্যালির ফ্লাগ অফ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘ভারতও আমাদের মুক্তিযুদ্ধের অংশীদার। মহান একাত্তরে কয়েক হাজার ভারতীয় সৈন্য শহীদ হয়েছেন। ভারত আমাদের কোটি শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছিল। ভুটান আমাদের স্বাধীন দেশ হিসেবে প্রথম স্বীকৃতি দেয়। নেপাল স্বাধীনতালগ্ন থেকে আমাদের বন্ধুপ্রতিম দেশ হিসেবে রয়েছে।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সামনে অনেক সমস্যা আছে। এ সবের সমাধানও আছে। চার দেশের মধ্যে সড়ক যোগাযোগ পুরোপুরি চালু করতে অবকাঠামোগত সমস্যা সমাধান করতে হবে। আমাদের সড়কপথটা আমরা ঠিক করতে পারব। ভারতও ঠিক করবে তাদের পথ। এভাবে সবাই সবার রাস্তা ঠিক করলে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘গাড়ি চলাচল চালু করতে হলে সংসদে আইন পাস হতে হবে। বাংলাদেশের সংসদে অধিবেশন হবে জানুয়ারিতে। এ অধিবেশনে আমাদের আইন পাস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এভাবে সব দেশে আইন পাস হয়ে গেলে সড়ক যোগাযোগ চালু হয়ে যাবে।’

ফ্লাগ অফ অনুষ্ঠান শেষে কলকাতার উদ্দেশে রওয়ানা হয় বাংলাদেশ-ভুটান-ভারত-নেপাল (বিবিআইএন) মৈত্রী মোটর র‍্যালিটি। সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাত্রাবিরতিতে মহান মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতির প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন র‌্যালিতে অংশগ্রহণকারীরা।

প্রায় সাড়ে তিন হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে ২৯ নভেম্বর বিকেলে র‌্যালিটি ঢাকায় পৌঁছায়। পরদিন ৩০ নভেম্বর একটি সেমিনারে যোগ দেন র‌্যালিতে অংশগ্রহণকারীরা। যাত্রার ১৮তম দিনে ঢাকা থেকে রওনা হয়ে যশোর, বেনাপোল হয়ে কলকাতা পৌঁছাবে র‌্যালিটি।