২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাবুলে জঙ্গী হামলা হতে পারে ॥ সতর্ক করল মার্কিন দূতাবাস

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে একটি আসন্ন হামলার বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছে দেশটির মার্কিন দূতাবাস। দুই দিনের মধ্যে এ হামলা হতে পারে বলে সোমবার গোয়েন্দা রিপোর্টে এ কথা জানা যায়। খবর ওয়েবসাইটের।

কাবুলে মার্কিন দূতাবাসের কাছে গোপন গোয়েন্দা রিপোর্ট সে রকমই। দূতাবাসের ওয়েবসাইটে রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বড়সড় জঙ্গী হামলার ঘটনা ঘটতে পারে কাবুলে। আফগানিস্তানের অন্য কয়েকটি জায়গাতেও হানা দিতে পারে জঙ্গীরা। গোপন গোয়েন্দা রিপোর্টের ভিত্তিতে এ ব্যাপারে আফগান সরকারকেও হুঁশিয়ার করে দিয়েছে কাবুলের মার্কিন দূতাবাস।

সোমবার দূতাবাসের ওয়েবসাইটে এ কথা জানিয়ে রাজধানী কাবুল তো বটেই, গোটা আফগানিস্তানে থাকা মার্কিন নাগরিকদের সব রকমভাবে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। তবে কাবুলের মার্কিন দূতাবাসের ওয়েবসাইটে এ কথাও জানানো হয়েছে, জঙ্গীরা কখন, কোথায়, হানাদারি কী ভাবে চালাবে, তা পুরোপুরি জানা যায়নি। হানাদারির লক্ষ্য কোন্ কোন্ এলাকা, সেটাও নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি।

এর আগে কাবুলে বা আফগানিস্তানের অন্যত্র যে সব জায়গায় তালেবানরা হানাদারি চালিয়েছে, প্রতিটি ক্ষেত্রেই তাদের লক্ষ্য ছিল হয় আফগানিস্তানের সেনাবাহিনী, না হলে বিদেশীরা। আফগানিস্তানে এখন তালেবানদের চেয়েও বেশি রমরমা ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গীদের।

সকল ধর্মের ক্ষেত্রে মৌলবাদ হচ্ছে ব্যাধি ॥ পোপ

পোপ ফ্রান্সিস বলেছেন, রোমান ক্যাথলিক গির্জাসহ সব ধর্মের ক্ষেত্রে মৌলবাদ হচ্ছে ব্যাধি। আফ্রিকার তিন দেশ সফর শেষে দেশে ফেরার পথে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। আফ্রিকা সফরকালে তিনি ধর্মীয় সম্প্রীতি ও আশার বাণী শোনান। সোমবার মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র থেকে ফেরার পথে বিমানে তিনি বলেন, ‘মৌলবাদ কোন ধর্ম নয়। এর মধ্যে প্রভুকে খুঁজে পাওয়া যায় না। এটা পৌত্তলিকতা।’

বিশ্বের ১২০ কোটি ক্যাথলিক খ্রীস্টানদের নেতা পোপ মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র সফরকালে সাম্প্রদায়িক সংঘাত বন্ধে খ্রীস্টান ও মুসলমান সম্প্রদায়ের সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘খ্রীস্টান ও মুসলমানরা একে অন্যের ভাইবোন।’ তিনি এই প্রথমবারের মতো আফ্রিকা সফর করলেন। সোমবার মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের পিকে ফাইভ জেলার কৌওদুকু এলাকার একটি মসজিদ পরিদর্শনের সময় তাকে হাজার হাজার লোক স্বাগত জানান। রাজধানী বাঙ্গুইয়ের পিকে ফাইভ এলাকায় থাকা মুসলমানদের সঙ্গে কথা বলেন পোপ। তিন বছরের খ্রীস্টান-মুসলমান দাঙ্গায় বাস্তুচ্যুত হয়ে শহরের পিকে এলাকায় আশ্রয় নেয় কয়েক হাজার মুসলমান। পোপের চলমান আফ্রিকা সফরে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নিত করা হয়েছিল বাঙ্গির এই মসজিদ পরিদর্শন। -ওয়েবসাইট