২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

’২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ দারিদ্র্যমুক্ত হবে

  • অস্ট্রিয়ায় শিল্পমন্ত্রী

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এমপির সম্মানে ২৯ নবেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় ভিয়েনার প্যান এশিয়া হোটেলে অস্ট্রিয়া প্রবাসী বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারীদের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম। পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম কবির।

প্রধান অতিথি আমির হোসেন আমু ছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সর্বইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, অস্ট্রিয়া প্রবাসী মানবাধিকার কর্মী, লেখক, সাংবাদিক এম নজরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ অস্ট্রিয়া ইউনিট কমান্ডের কমান্ডার বায়েজিদ মীর, অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবদুল জলিল, আকতার হোসেন, এ কে এম শওকত আলী, মিজানুর রহমান শ্যামল, বখতিয়ার রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক নয়ন হোসেন, ইমরুল কায়েস ও মুক্তিযোদ্ধা রবিউল হাসান চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু তার বক্তব্যে বাংলাদেশের মানুষের কল্যাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের গৃহীত বহুমূখী পদক্ষেপের বর্ণনা করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের সাফল্য তুলে ধরেন। স্বাধীনতা বিরোধীদের মিথ্যা প্রচার রোধে প্রবাসী বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিকদের বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও নিরক্ষরতামুক্ত, উদার ও গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিএনপি-জামায়াতের সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে সরকারের সাফল্যের ধারা অব্যাহত রেখে আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ব।

সভায় এম নজরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা আজ অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক, ক্ষুধা-দারিদ্র্য-শোষণ-জঙ্গীবাদমুক্ত সমৃদ্ধ আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার সংগ্রামে নিয়োজিত। তাই জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করতে প্রবাসে স্বাধীনতা বিরোধীদের অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র প্রতিরোধের লক্ষ্যে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। নৈশভোজের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ রোল মডেল ॥ নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ সরকার গৃহিত নীতি ও কর্মসূচী স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য রোল মডেল হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ নারীর ক্ষমতায়নে ইতোমধ্যে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। বাংলাদেশের রফতানি প্রক্রিয়াজাতকরণ অঞ্চলগুলোতে (ইপিজেড) কর্মরত শতকরা ৬৪ ভাগই নারী। তৈরি পোশাক শিল্প, শ্রমঘন এসএমই শিল্পসহ সামগ্রিক শিল্প খাতে নারীর অংশগ্রহণ প্রতিনিয়ত বাড়ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

শিল্পমন্ত্রী গতকাল অস্ট্রিয়ায় অনুষ্ঠিত ‘জাতিসংঘ শিল্প উন্নয়ন সংস্থার (ইউনিডো) চতুর্থ অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই শিল্প খাতের উন্নয়ন শীর্ষক ফোরামে বাংলাদেশের ইপিজেডগুলোর অভিজ্ঞতা বিনিময়কালে এসব মন্তব্য করেন। ইউনিডোর ১৬তম সাধারণ অধিবেশন উপলক্ষে ভিয়েনা ইন্টারন্যাশনাল সেন্টারে এ ফোরামের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালন করেন আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা সিএনএনের সাবেক উপস্থাপক টড বেঞ্জামিন। এতে অন্যদের মধ্যে ইউনিডোর মহাপরিচালক লি ইয়াং, নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ জোসেফ স্টিগলিজ, ইথিওপিয়ার শিল্পমন্ত্রী আহমেদ আবতিওসহ স্বল্পোন্নত দেশগুলোর শিল্পমন্ত্রী/বাণিজ্য ও অর্থমন্ত্রী, জাতিসংঘভুক্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা, আফ্রিকা ও এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকার আঞ্চলিক অর্থনৈতিক সংস্থা, দাতা সংস্থা, আঞ্চলিক উন্নয়ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান, সিভিল সোসাইটিসহ এলডিসিভুক্ত দেশগুলোর বেসরকারী খাতের প্রতিনিধিরা এতে বক্তব্য রাখেন।