২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভ্যানের ধাক্কায় আহত ১০ পুলিশ ॥ গুলিতে চালক নিহত

  • খুলনায় অবৈধ পণ্য আটকের জের

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ চোরাচালানী পণ্য আটক করতে গিয়ে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান (এপিবিএন) খুলনার সহকারী পুলিশ সুপারসহ ১০ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এ সময়ে আর্মড পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছেন ভারতীয় অবৈধ পণ্য বহনকারী কাভার্ড ভ্যানের চালক (অজ্ঞাত)। মঙ্গলবার সকালে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের ডুমুরিয়া উপজেলার চাকুন্দিয়া নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার ভোরে খুলনা এপিবিএনের সহকারী পুলিশ সুপার এহতেশামুল হকের নেতৃত্বে এপিবিএন সদস্যরা ডুমুরিয়ার আঠারোমাইল নামক স্থানে অবস্থান নেয়। সকাল সাড়ে ৬টার দিকে সাতক্ষীরা থেকে আসা দুটি কার্ভাড ভ্যানকে থামানোর জন্য তারা সিগনাল দিলে চালকরা দ্রুত কাভার্ড ভ্যান নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। তখন আর্মড পুলিশ সাদা মাইক্রোবাসযোগে তাদের ধাওয়া করে। তারা চাকুন্দিয়া নামক স্থানে গিয়ে কার্ভাড ভ্যানকে থামাতে রাস্তার ওপর মাইক্রোবাসটি আড়াআড়িভাবে দাঁড় করায়। এ সময় চালক কাভার্ড ভ্যান না থামিয়ে পুলিশের গাড়িকে ধাক্কা দিলে গাড়িটি ছিটকে পার্শ্ববর্তী গাছে গিয়ে আছড়ে পড়ে। মাইক্রোটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। আহত হয় ১০ এপিবিএন সদস্য। এ সময়ে এপিপিবিএনর মোটর সাইকেল বাহিনী কাভার্ড ভ্যান লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলে মারা যায় ঢাকা মেট্রো-ট-১৬-৬৯০৫ নম্বরের কাভার্ড ভ্যানের চালক (অজ্ঞাত)। আহত হয় ঢাকা মেট্রো-ড-১১-১৬৫১ নম্বর আরও একটি কার্ভাড ভ্যানের চালক জাহিদুল (৩০)। আহত পুলিশ সদস্যরা হচ্ছেন, এপিবিএন’র সহকারী পুলিশ সুপার এহতেশামুল হক, ইন্সপেক্টর জুয়েল ইসলাম, উপ-পরিদর্শক আনজির হোসেন, উপ-পরিদর্শক হাবিবুর রহমান, এএসআই মহাদেব, এএসআই মিনহাজ, কনস্টেবল, আকরাম, আল আমিন ও মাশিকুল। এদের মধ্যে শেষ পাঁচজনকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ওয়াডে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে চিকিৎসা নিয়েছে। আহত কাভার্ড ভ্যানচালক খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে। ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম মশিউর রহমান জানান, নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি। কাভার্ড ভ্যান দুটি ও মাইক্রোবাসটি থানায় আনা হয়েছে।