১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভোটের মাঠে মুখোমুখি আ’লীগ-বিএনপি

  • রাজশাহীতে জমে উঠেছে তৃণমূলের রাজনীতি

মামুন-অর-রশিদ, রাজশাহী ॥ রাজশাহীতে পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জমে উঠেছে তৃণমূলের রাজনীতি। ভোটের মাঠে ফের মুখোমুখি দুই দল বিএনপি ও আওয়ামী লীগ। জাতীয় নির্বাচনের আগে ‘নৌকা’ ও ‘ধানের শীর্ষ’ প্রতীক নিয়ে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে জনপ্রিয়তা যাচাইয়ে কোমর বেঁধে মাঠে নেমেছে দুই দলের প্রার্থীরা। দলীয় মনোনয়ন পাওয়া না পাওয়া নিয়ে মেয়র পদ নিয়ে প্রার্থীদের মধ্যে এখনও শঙ্কা কাজ করলেও পুরো দমে মাঠ চষে বেড়াচ্ছে সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা।

পৌরসভার ছোট-বড় বাজার থেকে শুরু করে সব জায়গায় চলছে ভোটের আলোচনা। পৌর নির্বাচনের হাওয়ায় এখন তৃণমূলে তোলপাড়। গ্রামের চায়ের স্টল থেকে হাটবাজার মুখরিত হচ্ছে প্রার্থীদের পদচারণায়। বাড়ি বাড়ি হানা দিতে শুরু করেছে প্রার্থীরা। এখন কাউন্সিলর প্রার্থীরায় মাতিয়ে রেখেছে পাড়া-মহল্লা।

রাজশাহী জেলা নির্বাচন অফিসের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত রাজশাহীর ১৩ পৌরসভায় সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৬০ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৫৬ প্রার্থী মনোনয়ন উত্তোলন করেছে। মেয়র পদে ৬০ জন মনোনয়ন তুলেছে। এরই মধ্যে অনেক কাউন্সিলর প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিলও করেছে।

রাজশাহী জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, মনোনয়নপত্র উত্তোলন ও জমা দেয়ার শেষ দিন ৩ ডিসেম্বর। ওইদিন পর্যন্ত প্রার্থীর সংখ্যা আরও বাড়বে। নির্বাচনে দলীয় প্রতীক হিসেবে সাধারণ ভোটাররা মেয়র প্রার্থীদের কদর করলেও সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ব্যক্তিই সবার আগে। মনোনয়ন উত্তোলনের আগে থেকেই পৌর এলাকা চষে বেড়াচ্ছে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীরা। সাধারণ মানুষের দরজায় গিয়ে শুরু করেছে ভোট চাওয়া। চলছে রাস্তার পাশে মোড়ে চায়ের দোকানগুলোতে প্রচার।

ভোটের দেরি থাকলেও ইতোমধ্যে প্রার্থীদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। নিজের পক্ষে নিতে সাধারণ ভোটারদের মগজ ধোলাইয়ে ব্যস্ত তারা। নিজ নির্বাচনী এলাকার মানুষের কাছে জানাচ্ছেন তাদের মনের কথা। দিচ্ছেন প্রতিশ্রুতি। সকালের শীতের আমেজ বাড়িয়ে দিয়েছে প্রার্থীদের আনাগোনা। সাধারণ মানুষও ভোট নিয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত সবখানে।