১৫ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চাপ মোকাবেলায় সক্ষম দেশের ব্যাংকিং খাত

  • চট্টগ্রামে বিবি গবর্নর

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ দেশের ব্যাংকিং খাতকে আমরা জনবান্ধব করার চেষ্টা করছি। ব্যাংকগুলো এখন গ্রাহককল্যাণ ও উদ্যোক্তাদের সাফল্যের জন্য কাজ করছে। ২০১৬ সালের মধ্যে সকল পাবলিক ব্যাংকের শাখা ডিজিটালাইজড করতে হবে। দেশে বিনিয়োগ, মূলধনী যন্ত্রপাতির আমদানি এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ক্রমেই বাড়ছে। ব্যাংকিং খাত নিয়ে দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই। বরং যে কোন চাপ মোকাবিলার শক্তি আমরা অর্জন করেছি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গবর্নর ড. আতিউর রহমান বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামে হিউম্যান রিসোর্সেস এ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বক্তব্যে তিনি বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমদানি-রফতানি, উন্নয়ন, প্রক্রিয়াকরণসহ সবকিছুই সবুজ ও পরিবেশবান্ধব করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক গবর্নর বলেন, দেশের ব্যাংকিং খাতে এখন তারল্য সঙ্কট নেই। বরং বেশি তারল্য হয়ে যাওয়ায় সমালোচনা হচ্ছে। তিনি জানান, সুদের হার কমেছে। স্পেড ৪ দশমিক ৭৭ শতাংশে নেমে এসেছে। একচেঞ্জ রেটও ধীরে ধীরে নামছে।

সবকিছুই স্থিতিশীল রয়েছে। বিনিয়োগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিনিয়োগ যথেষ্ট না হলে আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ৩ শতাংশ কেমন করে হলো।

কৃষি, শিল্প, ই-কমার্স, এসএমই প্রতিটি খাতেই বিনিয়োগ হচ্ছে। সব জায়গায় বিনিয়োগ হওয়ায় আলাদাভাবে চোখে পড়ছে না। দেশে মূলধনী যন্ত্রপাতির আমদানিও বেড়েছে। বর্তমানে মূলধনী পর্যাপ্ততার হার প্রায় ১১ শতাংশ।

ব্যাংক ঋণের সুদের হার প্রসঙ্গে গবর্নর বলেন, বিশ্বব্যাংক থেকে সম্প্রতি পাওয়া ৩শ’ মিলিয়ন ডলারের তহবিল থেকে ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে ৩ থেকে ৫ শতাংশ সুদে ঋণ দেয়া হবে। সবুজ বিনিয়োগের জন্য আরও ২শ’ মিলিয়ন ডলারের পাইপ লাইন খুলতে যাচ্ছি আমরা। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের আমদানি-রফতানি, উন্নয়ন ও সকল প্রক্রিয়া হবে সবুজ ও পরিবেশ বান্ধব।

বাংলাদেশ ব্যাংক চট্টগ্রাম কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক মোঃ মিজানুর রহমান জোয়ারদার এতে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গবর্নর আবু হেনা মোহাম্মদ রাজি হাসান, নির্বাহী পরিচালক মাহফুজুর রহমান, সিএমপি কমিশনার আব্দুল জলিল মণ্ডল ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুস ছালাম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক নির্মল চন্দ্র ভক্ত।