১৯ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খাগড়াছড়িতে শান্তি চুক্তির ১৮ বছর পূর্তি পালন

পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি, খাগড়াছড়ি ॥ তিন পার্বত্য জেলায় বুধবার ‘পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি’ তথা ‘শান্তি চুক্তি’র ১৮ বছর পূর্তি পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে সরকারের সাফল্য তুলে ধরতে সরকারী দল ও পার্বত্য জেলা পরিষদগুলোর পাশাপাশি নানান কর্মসূচীর আয়োজন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রামের শান্তি, সম্প্রীতি, নিরাপত্তা ও উন্নয়নে ভূমিকা পালনকারী সেনাবাহিনী। খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ দিবসটি পালন করছে নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে। সকাল সাড়ে নয়টায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ কার্যালয় চত্বর থেকে বের করা হয় বর্ণাঢ্য র‌্যালি। বর্ণাঢ্য র‌্যালির শুভ উদ্বোধন করেন খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। বর্ণাঢ্য র‌্যালির শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, সদর সেনা জোন অধিনায়ক লে. কর্নেল হাসান, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, পুলিশ সুপার মোঃ মজিদ আলী, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমনি চাকমাসহ জেলার রাজনৈতিক ও সামাজিক বিশিষ্ঠ নাগরিক এবং পদস্থ সরকারী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। র‌্যালি শেষে খাগড়াছড়ি পৌর মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে ঐতিহাসিক খাগড়াছড়ি স্টেডিয়ামে স্থানীয় সেনা রিজিয়ন কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হবে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ এবং সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। দেশের খ্যাতিমান শিল্পী এন্ড্রু কিশোরসহ অনেক গুণীশিল্পী এ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় সঙ্গীত পরিবেশন করবে বলে স্থানীয় সেনা সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে সন্তু লারমা সমর্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (পিসিজেএসএস) উদ্যোগে দিবসটি পালনের জন্য নেয়া হয়েছে নানা কর্মসূচী। পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি দিনটিকে পালন উপলক্ষে গ্রহণ করেছে আলোচনা সভা ও গণসমাবেশের।

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা ॥ ধর্ষক গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে এক শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করার ঘটনায় ধর্ষক ট্রাক চালক আমির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার ২০ দিন পর বুধবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নেত্রকোনা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (বন্দর) জয়নাল আবেদিন জানান, ধর্ষক আমির নেত্রকোনায় অবস্থান করছেন এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখান থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নেত্রকোনা থেকে আনার পর তাকে কোর্টে চালান করে দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ১৩ নবেম্বর তানিয়া নামে ৮ বছরের শিশুটিকে ধর্ষণ করে আমির। ধর্ষণের সময় সে শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে লাশ বস্তাবন্দী করে নগরীর ইপিজেড থানাধীন নারিকেল তলা এলাকার একটি পুকুরে ফেলে দেয়। তানিয়ার গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার কেন্দুয়ায়। সে মামার সঙ্গে নগরীর ইপিজেড থানাধীন নারিকেল তলায় থাকত।