২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু’কে জাতীয় স্লোগান ঘোষণা দাবি মুক্তিযোদ্ধাদের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একাত্তরে মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রেরণা ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগানকে জাতীয় স্লোগান হিসেবে ঘোষণা দেয়ার দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধারা। বুধবার বিকেলে রাজধানীর আইডিইবি ভবনে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স প্রাতিষ্ঠানিক ইউনিট কমান্ড আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এ দাবি জানান মুক্তিযোদ্ধারা।

‘জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান : রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রদানের অপরিহার্যতা’ শীর্ষক ওই আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতে এই স্লোগান রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দেয়া প্রয়োজন। এখন ‘জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু’ সেøাগানকে রাষ্ট্রীয় স্লোগান হিসেবে মর্যাদা দেয়া অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে এই স্লোগানটি অবিচ্ছেদ্য।

বক্তারা বলেন, মানবতাবিরোধীদের বিচারের রায় কার্যকরের মাধ্যমে জাতি অভিশাপ মুক্ত হতে চলছে। চলমান এ প্রক্রিয়াকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে এই সেøাগানের সর্বজনীন লালন, চর্চার কোন বিকল্প নেই। বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ নির্মাণে মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান নিশ্চিত করাসহ জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। ‘জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু’ সেøাগানকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দেয়ার পাশাপাশি মানবতাবিরোধী অপরাধে দ-িতদের সন্তান-সন্ততিদের এদেশের রাজনীতি ও সরকারের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে চাকরিগত অধিকার আইন করে বন্ধ করারও দাবি জানান বক্তারা।

আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, শুধু দাবি তুললেই হবে না। এই সেøাগানকে রাষ্ট্রী মর্যাদা দিতে আরও একবার মুক্তিযোদ্ধাদেরই জেগে উঠতে হবে। তিনি বলেন, ‘জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু’ সেøাগানকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দিতে প্রয়োজনে দেশের সকল সংসদ সদস্যের কাছে মুক্তিযোদ্ধাদেরই যেতে হবে। সংসদ সদস্যদের মাধ্যমেই বিষয়টি সংসদে উপস্থাপন করতে হবে।

সংগঠনের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মল্লিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব) হেলাল মোর্শেদ খান (বীর বিক্রম), আইডিইবির সভাপতি এ কে এম এ হামিদ। সংগঠনের সদস্য সচিব মুক্তিযোদ্ধা ইদরীস আলী আলেচনা অনুষ্ঠানের মূল বক্তব্য এবং বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম আব্দুল মোতালেব শুভেচ্ছা বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

আলোচনা অনুষ্ঠানের মূল বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা ইদরীস আলী বলেন, জাতির পিতার অনুপস্থিতিতে স্বাধীন বাংলাদেশে সামরিক সরকারের ছত্রছায়ায় স্বাধীনতা বিরোধীচক্র অত্যন্ত সুকৌশলে জয় বাংলাকে খাটো করে পাকিস্তানী ধাঁচে জিন্দাবাদ প্রচলনের চেষ্টা করেছে। নানান ধরনের কুৎসা রটনা করে স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবার এবং ‘জয় বাংলা ও জয় বঙ্গবন্ধ’ু সেøাগান সম্পর্কে বিরূপ ধারণা দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। লিখিত ওই বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বর্তমানে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি দেশ শাসনের মাধ্যমে তাদের ওই ষড়যন্ত্রের মুখোশ নতুন প্রজন্মের কাছে উন্মোচন হয়েছে। এই জাগরিত আশাকে আগামী প্রজন্মের কাছে উজ্জ্বলতার সঙ্গে এগিয়ে নেয়ার জন্য ‘জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু’ সেøাগানকে জাতীয় স্লোগান হিসেবে ঘোষণা দিতে হবে ও মর্যাদা দিতে হবে। নতুন প্রজন্মের মাঝে এই সেøাগানকে তুলে ধরতে হবে।