২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

যশোর ও চাঁপাইয়ে বন্দুকযুদ্ধে তিনজন নিহত

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ যশোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে তিনজন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে যশোরে পুলিশ-ডাকাত বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত ও একইদিন জেলার অভয়নগরে দুই দল চরমপন্থীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে এক চরমপন্থী নিহত হয়। অপরদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের সঙ্গে গুলিবিনিময়ে তোফায়েল আহমেদ মিলন নামে একজন নিহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে ককটেল ও অস্ত্র উদ্ধার করেছে র‌্যাব। খবর স্টাফ রিপোর্টারের।

যশোর ॥ পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত এবং অভয়নগরে দুইদল চরমপন্থীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে এক চরমপন্থী নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে যশোর সদরের রহমতপুর ও অভয়নগরের রানাগাতি গ্রামে।

যশোর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শিকদার আককাস আলী জানান, মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে যশোর-ঝিনাইদহ সড়কের সদর উপজেলার রহমতপুর এলাকায় ডাকাতি হচ্ছে এমন খবরে সেখানে অভিযান চালায় কোতোয়ালি থানা ও ডিবি পুলিশের পৃথক দুটি দল। এ সময় ডাকাত সদস্যরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ৭ থেকে ৮ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাঁচ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছোঁড়ে। উভয় পক্ষের মধ্যে গুলিবিনিময়ের এক পর্যায়ে ডাকাত দলের সদস্যরা পিছু হটে। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় এক ডাকাতকে এবং পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ভোর ৫টার দিকে ওই ডাকাতের মৃত্যু হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, এক রাউন্ড গুলি, তিনটি ধারাল রামদা, রশি ও একটি করাত উদ্ধার করে।

ওই ঘটনায় এক উপ-পরিদর্শকসহ তিন পুলিশ আহত হয়েছেন। তারা হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। আহতরা হলেন যশোর ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) তোফায়েল আহমেদ, কনস্টেবল সিরাজুল ইসলাম ও রাসেল। এর আগে একইরাতে জেলার অভয়নগরে দু’দল চরমপন্থীর মধ্যে সংঘর্ষে চরমপন্থী নেতা বিদ্যুৎ রায় (৩৫) নিহত হয়। বুধবার ভোরে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার মৃত্যু হয়। তিনি উপজেলার রানাগাতি গ্রামের সুকুমার রায়ের ছেলে।

অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন বলেন, মঙ্গলবার রাত সোয়া ২টার দিকে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলার রানাগাতি শ্মশানঘাট এলাকায় চরমপন্থীদের দুটি গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় বিদ্যুৎ রায়কে উদ্ধার করে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। একই সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, তিন রাউন্ড গুলি ও ৩টি বন্দুকের খোসা উদ্ধার করে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ॥ সদর উপজেলার চকআলমপুর গ্রামের একটি আম বাগানে মঙ্গলবার রাতে র‌্যাবের সঙ্গে গুলিবিনিময়ে একজন নিহত হয়েছে। এ সময় ককটেল ও অস্ত্র উদ্ধার করে র‌্যাব। নিহত ব্যক্তি হচ্ছে সদর উপজেলার রামচনদ্রপুর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে তোফায়েল আহমেদ মিলন (২০)।

র‌্যাব-৫ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্প কমান্ডার মোবাশ্বের রহিম জানান, মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে র‌্যাবের একটি টহল দল চকআলমপুর এলাকায় টহল দেয়ার সময় পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা একদল সন্ত্রাসী র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছুড়ে। গুলিবিনিময়কালে একজন নিহত হয় ও অন্যরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে ১টি পিস্তল, ১টি রিভলবার, ১টি ম্যাগাজিন, ৫ রাউন্ড গুলি ও ৪টি ককটেল উদ্ধার করা হয়। পরে পুলিশকে খবর দিলে বুধবার ভোর ৬টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মিলনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। মিলনের বিরুদ্ধে সদর থানায় বিভিন্ন অভিযোগে ৮টি মামলা রয়েছে।