২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই ঘন্টায়    
ADS

গেইলের সঙ্গে ওপেন করার স্বপ্ন লুইসের

স্পোর্টস রিপোর্টার চট্টগ্রাম থেকে ॥ কি অদ্ভুত মিল। দুই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যাটসম্যান বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (টি২০) দুই আসরে প্রথম সেঞ্চুরিয়ান হলেন। দু’জনই বরিশালের হয়ে সেঞ্চুরি করলেন। আবার দু’জনই থাকলেন ১০১ রানে অপরাজিত! একজন ক্রিস গেইল। আরেকজন এভিন লুইস। কাকতালীয়ভাবে দু’জনই আবার বরিশাল বুলসেই আছেন। লুইস ব্যাট হাতে মাঠ মাতালেও গেইল এখনও খেলতেই নামেননি। ঢাকায় রবিবার খেলতে নামবেন। এ দুই ব্যাটসম্যান ওপেনিংও করবেন একসঙ্গে। তরুণ লুইস তাতে ভীষণ পুলকিত। মঙ্গলবার ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে শতক করার পর বলেই দিয়েছেন, ‘গেইলের সঙ্গে ওপেন করতে পারলে স্বপ্ন পূরণ হবে।’ গেইলের সঙ্গে ওপেন করাই লুইসের স্বপ্ন। কি সেই স্বপ্ন। জানালেন লুইস, ‘গেইলই আমার প্রিয় ব্যাটসম্যান। আমার খেলার ধরন তার সঙ্গে মিলে যায়। আমিও তার মতো অনেক ছক্কা মারি, বড় বড় ছক্কা। তার মতোই ছক্কা মারতে ভালবাসি। গেইল আমার মেন্টর, আমি তাকে অনুসরণ করি। আমার জন্য এটি হবে অসাধারণ এক অভিজ্ঞতা। কখনই তার সঙ্গে ওপেন করার সুযোগ হয়নি। আশাকরি, এবার সুযোগ হবে। আমার জন্য সেটি হবে স্বপ্ন পূরণ!’

টি২০ ক্রিকেটের সেরা বিজ্ঞাপন এখন ক্রিস গেইল। দানবীয় ব্যাটসম্যান খ্যাত অভিজ্ঞ গেইল বিপিএলেরই প্রথম সেঞ্চুরিয়ান। প্রথম আসরে প্রথম সেঞ্চুরিটি গেইলেরই। মাঝখানে দ্বিতীয় আসর বাদ দিয়ে তৃতীয় আসরে এবার মঙ্গলবার গেইলের স্বদেশী তরুণ ব্যাটসম্যান লুইসও সেঞ্চুরি হাঁকালেন। ঢাকার বিপক্ষে ৬৫ বলে ৭ চার ও ৬ ছক্কায় অপরাজিত ১০১ রান করলেন। এবারের বিপিএলে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছক্কাও হাঁকিয়েছেন লুইস। শুধু তাই নয়, রায়ান টেন ডয়েশচেটের করা ১২তম ওভারে তিন ছক্কা ও দুই চার মেরে একাই ২৬ রান নিয়েছেন! বিপিএলে প্রথমবার খেলছেন এখন পর্যন্ত জাতীয় দলের জার্সি গায়ে না জড়াতে পারা লুইস। প্রথম ম্যাচে চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে ৪ রান করলেও দ্বিতীয় ম্যাচেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। যা বিপিএলে এবার প্রথম কোন ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরি।

বিপিএলে সবমিলিয়ে ৮টি শতক হয়েছে। এরমধ্যেই গেইলই একা ৩টি শতক করেছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের আরেক ব্যাটসম্যান ডোয়াইন স্মিথ (১০৩*), পাকিস্তানের আহমেদ শেহজাদ (১০৩*), বাংলাদেশ ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফীস (১০২*), ম্যাচ গড়াপেটায় নিষিদ্ধ হওয়া মোহাম্মদ আশরাফুল (১০৩*) ও লুইস শতকগুলো করেন।

সিলেট রয়্যালসের বিপক্ষে বরিশাল বার্নার্সের হয়ে ২০১২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি বিপিএলের প্রথম শতক করেন গেইল। অপরাজিত ১০১ রান করেন তিনি। এরপর একই আসরে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের বিপক্ষেও ১১৬ রানের ইনিংস খেলেন। দ্বিতীয় আসরে সিলেট রয়্যালসের বিপক্ষে ১১৪ রান করেন গেইল। দ্বিতীয় আসরের প্রথম শতকটি করেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফীস। দুরন্ত রাজশাহীর বিপক্ষে খুলনা রয়্যাল বেঙ্গলসের হয়ে সেঞ্চুরি করেন। তৃতীয় আসরে লুইস হচ্ছেন প্রথম সেঞ্চুরিয়ান।

এ সেঞ্চুরি লুইসকে জাতীয় দলের জার্সি পরতেও সহায়তা করবে। বিপিএল তাহলে লুইসকে বড় প্রাপ্তিই এনে দেবে। উচ্ছ্বসিত লুইস বলেছেন, ‘উইকেট ভাল ছিল, আমি নিজের খেলাটা খেলতে চেয়েছি। ঠিক করেছিলাম নিজের জোনে বল পেলেই মারব। গেইল অবশ্যই গর্বিত হবে। আমরা দু’জনই ক্যারিবিয়ানের, সে অবশ্যই গর্বিত হবে আমাকে নিয়ে।’ গর্ব করার মত কাজই করেছেন লুইস। তার খেলার ধরন দেখে এখনই সবাই বলতে শুরু করেছেন, গেইলের পথেই হাঁটছেন লুইস।

অথচ এ ক্রিকেটার যখন ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ থাকেন তখন সবাই অবাক হন। কেউই ঠিকমত তার সম্বন্ধে জানত না। বরিশাল ঠিকই দলে ভেড়ায়। ২৩ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যান ত্রিনিদাদ এ্যান্ড টোবাগোর বাসিন্দা। এ ওপেনার সেন্ট কিটস এ্যান্ড নেভিস প্রেট্রিয়টসের হয়ে ২০১৫ সালে সিপিএলে খেলেছিলেন। ১০ ম্যাচ খেলে ২২.২০ গড়ে ২২২ রান করেছিলেন। তবে তার ভাল সময়টি যায় ২০১৪ সালে। টি এ্যান্ড টি রেড স্টিলের হয়ে ৮ ম্যাচে ৩২১ রান করেন। সে থেকেই মূলত ‘বিগ হিটার’ খ্যাতিটি তার ভা-ারে যুক্ত হয়। সেই ‘বিগ হিটার’ এবার বিপিএলের তৃতীয় আসরে প্রথম সেঞ্চুরিয়ানই হয়ে গেলেন। সেঞ্চুরি করেই বলে দিলেন গেইলের সঙ্গে ওপেনিং করতে পারার স্বপ্নের কথা। যা রবিবারই পূরণ হয়ে যাবে।