১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

একই সুর সবার-আগামীর সেরা নেইমার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামীর সেরা তারকা নেইমার, ব্রাজিলিয়ান অধিনায়ক পরবর্তীতে ফুটবল বিশ্ব শাসন করবেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। ফিফা ব্যালন ডি’অরের সেরা তিনে জায়গা পাওয়ার পর নেইমারকে নিয়ে এমন আলোচনা সবখানে। অনেকেই দেখছেন, লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো পরবর্তী যুগে মাঠের ময়দান মাতাবেন নেইমার। ধারাবাহিকভাবে দুর্দান্ত পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে সে স্বাক্ষরই রেখে চলেছেন ২৩ বছর বয়সী এই উইঙ্গার। এই যেমন নেইমারকে নিয়ে উচ্ছ্বাস থামাতেই পারছেন না ক্লাব ও জাতীয় দল সতীর্থ দানিয়েল আলভেজ। তারকা এই ডিফেন্ডারের বিশ্বাস, নেইমার মেসির মতোই একটি যুগের রচনা করতে পারবেন। নেইমার চলতি মৌসুমে ১৪ গোল করে এখন পর্যন্ত স্প্যানিশ লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ৫ ম্যাচ খেলে করেছেন দুই গোল। চোটের কারণে মেসির অনুপস্থিতিতে বার্সিলোনাকে দারুণভাবে এগিয়ে নিয়ে যান তিনি। সাক্ষাতকারে এ প্রসঙ্গে আলভেজ বলেন, নেইমার যদি সীমায় আবদ্ধ না থাকতে চায়, তাহলে তার তাতে থাকতে হবে না। কারণ তার মধ্যে সীমা ছাড়ানোর বৈশিষ্ট্য ও যোগ্যতা আছে। নেইমারকে ‘ছোট ভাই’ বলে ডাকা আলভেস তার জাতীয় দলের অধিনায়ককে অনন্য বলে উল্লেখ করে বলেন, সে লিও আর লুইসের (সুয়ারেজ) মতো একজন খেলোয়াড়। যারা অনন্য, যারা ফুটবলে অন্য বড় খেলোয়াড়দের মতো একটি দশক বা একটি যুগে দাগ রেখে যাবে। এদিকে ফিফা বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জয়ে নিজ দেশের নেইমারের পক্ষেই নিজের সমর্থন দিয়েছেন ব্রাজিলের সাবেক কিংবদন্তি ফুটবলার রোনাল্ডো। ১৯৯৬, ১৯৯৭ ও ২০০২ সালে ব্যালন ডি’অর বিজয়ী রোনাল্ডো বলেন, আমাকে যদি বলা হয় তবে আমি নেইমারের পক্ষেই ভোট দিব। সারা বছর জুড়ে নিজের পারফর্মেন্সের কারণেই এবারের এই পুরস্কার তার প্রাপ্য। সে তার খেলাকে একটি অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। সাধারণত একজন ব্রাজিলিয়ান হিসেবে সকলে যেভাবে খেলে থাকে তার থেকে সে সম্পূর্ণ ভিন্ন। মেসি এবং রোনাল্ডো এই উচ্চতা ইতোমধ্যেই পার করেছে। নেইমারের ২০১৫ মৌসুম তার দুই প্রতিদ্বন্দ্বীর তুলনায় কম আকর্ষণীয় নয়। ২৩ বছর বয়সী এই ব্রাজিলিয়ান ৫১ ম্যাচে করেছেন ৪১ গোল। যেখানে রোনাল্ডো ৪৭ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৪৫ গোল ও মেসি করেছেন ৪৮ ম্যাচে ৪৪ গোল। এদিকে লিওনেল মেসি আর নেইমার বর্ষসেরা ফুটবলারের সংক্ষিপ্ত তালিকায় সঙ্গে চেয়েছিলেন আক্রমণভাগ ত্রয়ীর অপর সদস্য সুয়ারেজকেও। লিভারপুল ছেড়ে বার্সিলোনায় নাম লেখানোর পর অসাধারণ খেলে যাচ্ছেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার সুয়ারেজ।

রেকর্ড বইয়ে ইয়ামিন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্যারিয়ারের প্রথম টি২০ ম্যাচের প্রথম বলেই উইকেট নিয়ে রেকর্ড বইয়ে নাম লিখিয়েছেন পাকিস্তানের ডান-হাতি পেসার আমির ইয়ামিন। সোমবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি২০তে অভিষেক হয় ইয়ামিনের। ম্যাচের প্রথম ওভারটি করার সুযোগও পান। আর প্রথম বলেই ইংল্যান্ডের জেসন রয়কে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে টি২০ ক্যারিয়ারে প্রথম বলেই উইকেট নেয়ার রেকর্ড গড়েন ইয়ামিন। রেকর্ড বইয়ের তালিকায় ১২তম ক্রিকেটার হিসেবে নাম ওঠে ইয়ামিনের। তবে পাকিস্তান ম্যাচটিতে জয় পায়নি। ৩ ম্যাচ টি২০ সিরিজে পাকিদের ‘হোয়াইটওয়াশ’ করে ইংলিশরা। নিজের এবং দেশের প্রথম টি২০ হওয়ায় পরশ খাড়কার (হংকং) মতো অনেকে এই রেকর্ডে নাম লেখানোর সুযোগ পেয়েছেন।

টি২০ অভিষেকের প্রথম বলেই উইকেট নেয়া ক্রিকেটাররা হলেনÑ মাইকেল কাসপ্রোইজ (২০০৪/০৫), আলফেনসো থমাস (২০০৬/০৭), শন টেইট (২০০৭/০৮), ররি ক্লেইনভেল্ডট (২০০৮/০৯), প্রাজ্ঞন ওঝা (২০০৯), জা ডেনলি (২০০৯/১০), বিরাট কোহলি (২০১১), নাদিম আহমেদ (২০১৩/১৪), পরশ খড়কা (২০১৩/১৪), উইলি গাভেরা (২০১৫), জয় লালচেতা (২০১৫/১৬) ও আমির ইয়ামিন (২০১৫/১৬)।