২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিরিয়ায় হামলার বিপক্ষে ভোট দেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তিন এমপি

  • ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোটাভুটি

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ পার্লামেন্টের ভোটাভুটিতে হামলার বিপক্ষে অবস্থান নেয়ায় বাংলাদেশী কমিউনিটিসহ সাধারণ মানুষের কাছে ব্যাপক প্রশংসিত হচ্ছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তিন এমপি রোশনারা আলী, টিউলিপ সিদ্দিক ও রূপা হক। সিরিয়ায় হামলার অনুমোদনের বিষয়ে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে এবং এতে হামলাকে অনুমোদন দেয়া হয়। ভোটাভুটিতে ৬৬ জন লেবার এমপি সমর্থন দিলেও এর পক্ষে ভোট দেননি বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তিন লেবার দলীয় এমপি। স্থানীয় সময় বুধবার পার্লামেন্টে লেবার পার্টির সঙ্গে সরকারী দল কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যদের দীর্ঘ ১০ ঘণ্টা বিতর্ক শেষে ৩৯৭-২২৭ ভোটে হামলার পক্ষে সিদ্ধান্ত হয়। ভোটে হামলার পক্ষে প্রস্তাব পাস হলেও হামলার বিপক্ষে ভোট দেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত এমপি রোশনারা আলী, টিউলিপ সিদ্দিক ও রূপা হক। বাঙালী অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসের আরেক এমপি জিম ফিটজপেট্রিক অবশ্য দলীয় নেতা জেরিমি করভিনের আহ্বান উপেক্ষা করে হামলার পক্ষে ভোট দেন। শ্যাডো সেক্রেটারি অব স্টেট ফর কালচার মিডিয়া ও স্পোর্টস মাইকেল ডাগার দলীয় নেতা করভিনের আহ্বান উপেক্ষা করে হামলার পক্ষে ভোট দিলেও তার পার্লামেন্টারি প্রাইভেট সেক্রেটারি বঙ্গবন্ধুর নাতনি শেখ রেহানার কন্যা টিউলিপ সিদ্দিক ভোট দিয়েছেন হামলার বিপক্ষে। নিজ দেশের নিরাপত্তা রক্ষার্থে সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের (আইএস) ওপর হামলার অনুমোদন চেয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন বুধবার পার্লামেন্টে এ বিতর্ক ও ভোটাভুটির আয়োজন করেন। লেবার পার্টি নেতা জেরেমি করভিন হামলার বিরোধিতা করে আইএস দমনে এ কৌশলের যথার্থতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেও তার দলের ৬৬ জন এমপি হামলার পক্ষে ভোট দেন, যাদের মধ্যে তার ছায়া মন্ত্রিসভার সদস্যই রয়েছেন ১১ জন। ভোটে হামলার পক্ষে পার্লামেন্টের অনুমোদন পাওয়ার পর ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ড বলেন, সিরিয়ায় আইএসের ওপর হামলা চালাতে অতি দ্রুত, তার দেশের বিমান মোতায়েন করা হবে। সিরিয়ায় বিমান হামলার বিষয়ে ক্যামেরনের পরিকল্পনা ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই এর বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রতিবাদ গড়ে ওঠে। হামলা না চালানোর আহ্বান জানিয়ে গত শনিবার ১০ ডাউনিং স্ট্রিটের সামনে অনুষ্ঠিত হয় হাজারো মানুষের সমাবেশ। এতে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশীও অংশ নেন। পার্লামেন্টের ভোটাভুটিতে হামলার বিপক্ষে অবস্থান নেয়ায় বাংলাদেশী কমিউনিটিসহ সাধারণ মানুষের কাছে ব্যাপক প্রশংসিত হচ্ছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তিন এমপি।