২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মিসরে নাইটক্লাবে আগুনেবোমা হামলায় হত ১৬

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ মিসরের রাজধানী কায়রোর একটি রেস্তরাঁ কাম নাইটক্লাবে আগুনেবোমা হামলায় অন্তত ১৬ জন নিহত এবং পাঁচজন দগ্ধ হয়েছেন। শুক্রবার কায়রোর কেন্দ্রস্থলে আগুজা এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলাকারী ওই রেস্তরাঁরই একজন বরখাস্ত কর্মচারী বলে ধারণা করছে পুলিশ। নিহতদের অধিকাংশেরই মৃত্যু ঘটে দগ্ধ অথবা ধোঁয়ায় শ্বাসরোধ হয়ে। খবর বিবিসি ও আলজাজিরা অনলাইনের।

একটি ভবনের বেজমেন্টে ওই রেস্তরাঁ কাম নাইটক্লাব থেকে হামলার পর বেরিয়ে আসার আর কোন পথ ছিল না বলে মিসরীয় কর্মকর্তারা জানান।

মিসরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, মালিকের সঙ্গে কর্মীর বিরোধ থেকেই এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, তিনজন মুখোশধারী ওই নাইটক্লাবে আগুনেবোমা নিক্ষেপ করে পালিয়ে যায়। এক প্রত্যক্ষদর্শী অনটিভিকে বলেন, হামলার পর দৃষ্কৃতকারীরা মোটরসাইকেলে করে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলের ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, ঘন, ধুসর ধোঁয়া প্রবেশপথ দিয়ে বের হচ্ছে। এ সময় প্রবেশপথের ভেতরে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। একজন আগুন নির্বাপণযন্ত্র দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। আগুনে দগ্ধ ও ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে ১৬ জন নিহত হয়। এদের মধ্যে ১১ জন পুরুষ এবং পাঁচজন নারী। এর আগে কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, হামলায় ১৮ জন নিহত হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্র আল আহরাম সংবাদ সংস্থাকে জানায়, হামলাকারীদের একজনকে চিহ্নিত করা গেছে। অন্যদের সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি। আর হামলায় কতজন অংশ নিয়েছে সে বিষয়েও নিশ্চিত নয় পুলিশ।

কিছুদিন আগে কায়রোতে নিরাপত্তা বাহিনী এবং বেসামরিক লোকজনের ওপর কয়েকদফা জঙ্গী হামলার ঘটনা ঘটে।

২০১৩ সালে সেনাবাহিনী মিসরের মোহাম্মদ মুরসি সরকারকে উৎখাত করার পর থেকে দেশটির বিভিন্ন স্থানে এ ধরনের জঙ্গী হামলার ঘটনা ঘটে চলেছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রে এর শিকার হচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা।