২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সড়কের ওপর মার্কেট

মামুন-অর-রশিদ, রাজশাহী ॥ রাজশাহী মহানগরীর রাজারহাতা এলাকায় লোকনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে রাস্তার ওপর বিপণি বিতান নির্মাণ করছে সিটি কর্পোরেশন। একে তো সরু রাস্তা, তারপর আবার বিপণিবিতান নির্মাণ করায় ভোগান্তিতে পড়েছেন স্কুলে-কলেজে যাতায়াতকারী শিক্ষার্থী ও পথচারীরা।

২০১২ সালে বিপণিবিতান নির্মাণ করার সময় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, এটি অস্থায়ী। পরে ওই ব্যবসায়ীদের অন্যত্র পুনর্বাসন করা হবে। এরপর রাস্তাটি আবার চলাচলের জন্য ছেড়ে দেয়া হবে। কিন্তু তিন বছরেও সেই উদ্যোগ আলোর মুখ দেখেনি। এখন ওই সড়কে প্রবেশ করলে সহজে বের হওয়া যায় না।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১৮২১ সালে নগরীর রাজারহাতা এলাকার বিদ্যানুরাগী ব্যক্তিদের প্রতিষ্ঠিত লোকনাথ উচ্চ বিদ্যালয়ের বর্তমানে শিক্ষার্থী প্রায় ৮০০। বিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে দিয়েই যাওয়া এই রাস্তার পার্শ্ববর্তী রাজশাহী কলেজ ও রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল, রাজশাহী সরকারী সিটি কলেজ, রাজশাহী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রাজশাহী সার্ভে ইনস্টিটিউটের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ব্যবহার করেন। বিপণিবিতানগুলো রাজশাহী সিটি সেন্টার ও রাজশাহী আঞ্চলিক শিক্ষা কার্যালয়ের কাছে। গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটিতে বিপণিবিতান করায় রাস্তায় যানবাহন চলাচল কঠিন হয়ে পড়েছে।

প্রতিনিয়ত দুর্ভোগের মধ্যে পড়েন স্কুল কলেজমুখী শিক্ষার্থী ও সাধারণ পথচারীরা।

বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও রাজশাহীর সংস্কৃতিকর্মী রাশেদ আরেফিন বলেন, সাহেববাজার এলাকায় যানজটের সময় এ রাস্তাটি মানুষ বাইপাস হিসেবে ব্যবহার করত। বাজার বসানোর কারণে রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুলের পূর্ব পাশের রাস্তায় সারাদিন পথচারী ও যানবাহন চলাচল করতে পারে না। এ রাস্তাও একইভাবে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় নগরবাসী চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। আর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের।

রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী বুলবুল হাসান জানান, সাহেব বাজারের যানজট এড়িয়ে তারা এ রাস্তায় কলেজে যাতায়াত করেন। এখানে মার্কেট হওয়ায় যানজট তৈরি হচ্ছে। তাদের দুর্ভোগ এড়ানোর আর উপায় নেই।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক বলেন, নগরীর আরডিএ মার্কেটের মুড়িপট্টিতে বহুতল ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। সেখানকার ব্যবসায়ীদের সাময়িকভাবে পুনর্বাসনের জন্য ওইসব দোকানঘর করে দেয়া হয়েছে।

ওই মার্কেটের কাজ শেষ হলেই তাদের এখান থেকে সরিয়ে দেয়া হবে। এখনও বছর খানেক সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছিলেন এই কর্মকর্তা। কিন্তু তিন বছরেও সেই উদ্যোগ আলোর মুখ দেখেনি।

মুড়িপট্টির বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে, তারপরও কেন লোকনাথ স্কুলের সামনের বিপণিবিতানগুলো সরিয়ে নেয়া হচ্ছে না জানতে চাইলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

নির্বাচিত সংবাদ