২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে জমজমাট স্বল্প পুঁজির ব্যবসা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শীত এলে গ্রাম বাংলার প্রতিটি বাড়িতে পিঠা বানানোর ধুম পড়ে। অগ্রহায়ণের নতুন ধানের পিঠার আয়োজন পৌষে এসে শীতের অন্য মাত্রা পায়। শীতের পিঠা বললেই চলে আসে ভাঁপা পিঠার নাম। সঙ্গে অবশ্য চিতই পিঠা, তেলের পিঠাও থাকে। শীতের পিঠা খাওয়ার সুযোগ মিলবে কিভাবে, বিশেষ করে এই ঢাকা শহরে?

এর সমাধান জানেন শুধু গুটিকয় মৌসুমি পিঠা ব্যবসায়ীরাই। নগরীতে মৌসুমি পিঠা বিক্রেতারাই শীতের সময়টাতে পিঠা বিক্রি করেই জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। তাঁদের মধ্য থেকে তেমনি এক পিঠা ব্যবসায়ী বরিশালের মোঃ আমীর হোসেন (৬৫) তিনি দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে ঢাকায় ইস্কাটন শান্তিকুঞ্জ গেটের পাশে বসে এই মৌসুমি পিঠার পসরা বসিয়ে ব্যবসা করে আসছেন। চালের গুঁড়া, নারকেল, জ্বালানি আর দীর্ঘদিনের পিঠা তৈরির অভিজ্ঞতাকে সম্বল করেই তিনি তৈরি করেন হরেক রকমের মুখরূচক ভাঁপা, চিতই, পুলি পিঠা। তাই সকল শ্রেণীর মানুষেরা তাঁর পিঠার স্বাদ পাবার আশায় এমনকি অনেক মুখরুচক ক্রেতারাও ভিড় করে দাঁড়িয়ে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে থাকেন পিঠা ক্রয়ের আশায়। একটু ব্যতিক্রম এ ব্যবসা তিনি শুরু করেন যখন সূর্য মধ্য দুপুর পেরিয়ে পশ্চিমে গড়ায় তখন, আর চলে রাত প্রায় ১১টা পর্যন্ত। তবুও তিনি হাল ছাড়েন না একটু বেশি আয়ের আশায় কারণ এ ক্ষুদ্র ব্যবসাটিই তাঁর পরিবারের উপার্জনের একমাত্র হাল। ক্ষুদ্র পরিসরে, ক্ষুদ্র পুঁজিতে কতইবা আর মুনাফা হতে পারে? তবুও এই পিঠা ব্যবসার ওপর ভর করেই তাঁকে পাঁচ সদস্যের পরিবারের ভরণ-পোষণ করতে হয়। আছে অনেক কষ্ট, আছে দিনযাপনের অনেক যন্ত্রণা তবুও তিনি মনের আনন্দেই তা করে চলেছেন যুগ যুগ ধরে।

আফ্রিকায় ৬০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে চীন

আফ্রিকার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে ৬০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। সড়ক, বন্দর ও রেলপথ নির্মাণে এ বিনিয়োগের পাশাপাশি তিনি চীন থেকে আফ্রিকার স্বল্পোন্নত দেশগুলোর নেয়া কিছু ঋণ মওকুফের ঘোষণা দিয়েছেন। চীন-আফ্রিকা সহযোগিতা ফোরামের (এফওসিএসি) ষষ্ঠ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট শি শুক্রবার দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে এসব কথা বলেন। আফ্রিকার অনেক দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান এ সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন। চীনের প্রেসিডেন্ট এফওসিএসি সম্মেলনে কো-চেয়ারের দায়িত্ব পালন করছেন। আফ্রিকার জন্য চীনের নেতৃত্বে ১০ দফা উন্নয়ন পরিকল্পনা ঘোষণা করতে গিয়ে তিনি বলেন, আফ্রিকার দেশগুলোর অভ্যন্তরীণ কোন বিষয়ে চীন হস্তক্ষেপ করবে না। আমরা চাই সমমর্যাদার একটি সম্পর্ক গড়ে তুলতে। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার

সোনার দাম আবারও কমল

এক মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে বাংলাদেশে সোনার দাম আরেক দফা কমেছে। এবারও ভরিপ্রতি এক হাজার ২২৫ টাকা করে কমানো হয়েছে। বাংলাদেশের বাজারে সোনার দাম কমানোর এই ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস), যা শনিবার থেকে কার্যকর করা হয়েছে। বাজুস সূত্রে জানা যায়, শনিবার থেকে ২২ ক্যারেটের প্রতি গ্রাম সোনা ৩ হাজার ৫৪০ টাকায় বিক্রি হবে। ১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রামে এক ভরি হিসাবে প্রতি ভরির দাম পড়বে ৪১ হাজার ২৯০ টাকা। এর আগে প্রতি গ্রাম এই মানের সোনা বিক্রি হয়েছে ৩ হাজার ৬৪৫ টাকায়। এক ভরির দর ছিল ৪২ হাজার ৫১৫ টাকা। নতুন দর অনুযায়ী ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি সোনা ৩৯ হাজার ১৯১ টাকায় (প্রতি গ্রাম ৩ হাজার ৩৬০ টাকা) বিক্রি হবে। ১৮ ক্যারেটের সোনা বিক্রি হবে ৩২ হাজার ৫৪২ টাকায় (প্রতি গ্রাম ২ হাজার ৭৯০ টাকা) আর সনাতন পদ্ধতির ভরি বিক্রি হবে ২১ হাজার ৪৬২ টাকায় (গ্রাম ১ হাজার ৮৪০ টাকা)। -অর্থনৈতিক রিপোর্টার