২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মিরপুরে ভাগ্য নির্ধারণী লড়াই শুরু

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আজ ম্যাচ না থাকলেও যেন অশরীরে বরিশাল বুলসের বিপক্ষে সিলেট সুপার স্টারসের মধ্যকার ম্যাচে মাঠে থাকবেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের সব ক্রিকেটার! দিনের প্রথম ম্যাচেই বরিশাল ও সিলেট লড়াই করবে। সেই সঙ্গে লড়াই হবে বরিশালের ক্রিস গেইল ও সিলেটের শহীদ আফ্রিদির মধ্যেও। কে দলকে জেতাতে পারেন সেই দিকেই সবার দৃষ্টি থাকবে। তবে এ ম্যাচটির দিকে যেন পুরো দৃষ্টিই থাকবে কুমিল্লার ক্রিকেটারদের। এ ম্যাচটিতে সিলেট হারলে সবার আগে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল টি২০) দ্বিতীয় পর্বে উঠে যাবে বরিশাল। তবে উৎসব শুরু হয়ে যাবে কুমিল্লা শিবিরেও। মাশরাফি বিন মর্তুজার দল কুমিল্লাও যে দ্বিতীয় পর্বে ওঠা নিশ্চিত করে নেবে। রংপুর রাইডার্স শিবিরেও দেখা যেতে পারে উল্লাস। যদি দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়ে দিতে পারে। সেই সঙ্গে প্রথম ম্যাচে সিলেট যদি হেরে যায় তাহলে সাকিব আল হাসানের দল রংপুরের তখন দ্বিতীয় পর্বে খেলার টিকেট মিলবে।

টুর্নামেন্টে এবার তিনটি পর্ব থাকছে। প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় অথবা শেষ পর্ব। প্রথম পর্বে লীগ পর্বের খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয় পর্বে কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর ম্যাচ হবে। যে পর্বটি এবার আইপিএলের আদলে হবে। পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা দুই দল প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে খেলবে। জেতা দল ফাইনালে চলে যাবে। হারা দলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচ খেলার সুযোগ থাকবে। পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা তৃতীয় ও চতুর্থ দলের মধ্যে এলিমিনেটর ম্যাচ হবে। যে দল হারবে বিদায় নেবে। জেতা দল প্রথম কোয়ালিফায়ারে হারা দলের সঙ্গে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলবে। যে দল তখন জিতবে প্রথম কোয়ালিফায়ারের জেতা দলের বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ খেলবে। ফাইনাল ম্যাচটি হচ্ছে টুর্নামেন্টের শেষ পর্ব। লীগ পর্ব শেষ হওয়ার সময় ঘনিয়ে আসছে। টুর্নামেন্টের ৩৪টি খেলার মধ্যে ২০টি খেলা শেষ হয়ে গেছে। লীগ পর্বে আর বাকি আছে ১০টি খেলা। এ পর্বে দিনের প্রথম খেলা শুরু হওয়ার সময় বেড়েছে। আধ ঘণ্টা বেড়ে দুপুর আড়াইটায় প্রথম ম্যাচ শুরু হবে। দ্বিতীয় ম্যাচ সেই সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা বাজেই শুরু হবে। দ্বিতীয় পর্বে ওঠার জন্যই এখন দলগুলো শেষ সময়ের লড়াইয়ে নামবে।

টুর্নামেন্টে ৬টি দল খেলছে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, বরিশাল বুলস, রংপুর রাইডার্স, ঢাকা ডায়নামাইটস, চিটাগাং ভাইকিংস ও সিলেট সুপার স্টারস। প্রতিটি দলই ডাবললীগ পদ্ধতির এ টুর্নামেন্টে ১০টি করে ম্যাচ খেলবে। দলগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সুবিধাজনক স্থানে আছে কুমিল্লা ও বরিশাল। এক ম্যাচ জিতলেই ২ পয়েন্ট করে মিলছে। সেই হিসেবে কুমিল্লা ও বরিশাল দুই দলই ৫ জয় নিয়ে ১০ পয়েন্ট করে পেয়েছে। কুমিল্লা ৭ ও বরিশাল ৬ ম্যাচ খেলেছে। এরপর ৭ ম্যাচে ৪ জয়ে রংপুর ৮ পয়েন্ট পেয়ে তৃতীয় স্থানে আছে। ৬ ম্যাচে ৩ জয়ে ঢাকা পেয়েছে ৬ পয়েন্ট। টুর্নামেন্টে সবচেয়ে বাজে অবস্থায় আছে চিটাগাং ও সিলেট। ৮ ম্যাচে ২ জয়ে চিটাগাং ৪ পয়েন্ট পেয়ে পঞ্চম স্থানে ও ৬ ম্যাচে মাত্র ১ জয়ে সিলেট ২ পয়েন্ট পেয়ে সবার তলানিতে অবস্থার করছে। কাগজে-কলমে এখনও সুযোগ থাকলেও চিটাগাং ও সিলেটের বিদায় নেয়াটা সময়ের ব্যাপারই হয়ে দাঁড়িয়েছে। চিটাগাং আছে মহাবিপদে। বাকি থাকা ২ ম্যাচের মধ্যে যে কোন একটি ম্যাচ হারলেই বিদায় নেবে। সিলেটের ক্ষীণ সুযোগ আছে। তবে এ জন্য রংপুর অথবা ঢাকা, যে কোন একদলকে বাকি থাকা সবকটি ম্যাচেই হারতে হবে। সিলেটকে সবকটি ম্যাচই জিততে হবে।

সিলেটকে সেই সুযোগ কি দেবে রংপুর বা ঢাকা? যেহেতু আজ জিতলেই দ্বিতীয় পর্বে ওঠার সুযোগ থাকছে। তাই রংপুরের কোচ শেন জার্গেনশন মনে করছেন, জেতা ছাড়া বিকল্প কিছুই কারও মাথায় নেই। ঢাকার অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা যেন নাছোড় বান্দা। যে করেই হোক রংপুরকে হারাতে চান। বলেছেন, ‘দেশের সেরা কয়েকজন ক্রিকেটার আমার দলে আছে। তাদের সুযোগ দিতে হবে। আমার মনে হয় তারা ভাল কিছু করে দেখাতে পারবে। যে ভুলগুলো এর আগে করেছি আমরা তা আর করা যাবে না। আশাকরি তা থেকে বের হয়ে ভাল কিছু করতে পারব।’ এই ভাল মানেই হচ্ছে রংপুরকে হারিয়ে দেয়ার স্বপ্ন দেখা। প্রথম লেগে রংপুরের কাছে ৬৯ রানের বড় ব্যবধানেই হেরেছে ঢাকা। এবার প্রতিশোধ নেয়ারও পালা রংপুরের।

সিলেটের জসুয়া কব দাবি করছেন, সব ভুল শুধরে এবার জয়ে ফিরতে চান। এবার সিলেটের শহীদ আফ্রিদি আছেন। টুর্নামেন্টের প্রথম লেগে বরিশালের কাছে মাত্র ১ রানে হারে সিলেট। সেই প্রতিশোধও নিতে চায় মুশফিকুর রহীমের দল। আফ্রিদি, রবি বোপারা, দিলশান মুনাভিরা, সোহেল তানভিররা আছেন বলেই কি সিলেট ভরসা দেখছে? তা হলে কি ভুলই করবে দলটি। প্রতিপক্ষ দলে যে আজ খেলবেন টি২০ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন ক্রিস গেইল। সেই সঙ্গে ওপেনিংয়ে টুর্নামেন্টের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান এভিন লুইস সঙ্গ দেবেন গেইলকে। যে ওপেনিংয়ের দিকে সবার নজর থাকবে আজ। ধরা হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের এ দুই ব্যাটসম্যানকে নিয়ে যে কোন দলই বিস্তর ভাবনায় থাকবে। আর কেভিন কুপার, দুর্দান্ত বোলিং করতে থাকা পেসার আল আমিন হোসেন তো আছেনই। গেইল তাই জয়ের ব্যাপারে ভীষণ আত্মবিশ্বাসী। শুধু আজকের ম্যাচ নয়, দলকে ফাইনালে দেখতে চান। বলেছেন, ‘বাংলাদেশে আবার আসতে পেরে ভাল লাগছে। এখানে যখনই খেলেছি, ভাল পারফর্ম করেছি। এবার আমার দলও খুব ভাল খেলছে। কালকের (আজকের) ম্যাচে ভাল কিছু করার চেষ্টা করবো। ব্যক্তিগতভাবে ভাল করার পাশাপাশি পয়েন্ট টেবিলে দলের অবস্থান সুসংহত করার দিকেও চিন্তা থাকবে। ফাইনালে যাওয়ার জন্য সর্বাত্মকভাবে পারফর্ম করবো।’

এখন দেখা যাক, সিলেটের হার হয় কিনা, বরিশাল, কুমিল্লা তাতে দ্বিতীয় পর্বে উঠে যায় কিনা এবং দ্বিতীয় ম্যাচে রংপুরও জিতে লীগ পর্বের গ-ি অতিক্রম করে কিনা। নাকি সব ওলট পালট হয়ে টুর্নামেন্টের আমেজ আরও বেড়ে যায়। সিলেট জিতে সবাইকেই দ্বিতীয় পর্বে ওঠার অপেক্ষায় রাখে এবং নিজেই সেই পর্বে ওঠার আশায় থাকে।